দেশে এখন

কোটা বাতিলের দাবিতে সারাদেশে 'বাংলাদেশ ব্লকেড' কর্মসূচির ঘোষণা

সরকারি চাকরিতে কোটা বাতিলের দাবিতে রবিবার থেকে সারাদেশে 'বাংলাদেশ ব্লকেড' কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন। আজ (শনিবার, ৬ জুলাই) বিকেলে শাহবাগে এই ঘোষণা দিয়ে তা পালনে দেশের সব শিক্ষার্থী-অভিভাবকদের আহ্বান জানান আন্দোলনের সমন্বয়ক ফাহিম নাহিদ। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত রাজপথে থাকবার ঘোষণাও দেন আন্দোলনকারীরা।

'বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলন' এর বিক্ষোভ মিছিলের ঘোষণা ছিল আগেই, তাতে সাড়া দিয়ে বিকেল তিনটায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে জড়ো হন কোটা পদ্ধতি বিলুপ্তির দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

মিছিল নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা ঘুরে নীলক্ষেত, ইডেন কলেজ, পলাশী, বুয়েট, টিএসসি হয়ে শিক্ষার্থীরা আসেন শাহবাগ চত্বরে। সড়ক অবরোধ করে দাবির পক্ষে স্লোগান তোলেন শিক্ষার্থীরা।

২০১৮ সালে জারি হওয়া কোটা পুনর্বহালের দাবি করেন তারা। জানান, বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের ব্যানারে কর্মসূচি চলবে।

তারা বলেন, আমাদের দাবি হাইকোর্টের এই রায় প্রত্যাহার করে নিতে হবে। ২০১৮ সালের পরিপত্র পুনর্বহাল করতে হবে। এখানে সবাই স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ করেছে। যতক্ষণ না পর্যন্ত আমরা আমাদের অধিকার বুঝে পাচ্ছি আমরা সড়ক ছাড়বো না। কোটার মাধ্যমে যে বৈষম্য সৃষ্টি করা হয়েছে, তা থেকে আমরা মুক্তি চাই।

বক্তব্য রাখছেন বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সমন্বয়ক ফাহিম নাহিদ। ছবি: এখন টিভি

একই দাবিতে চট্টগ্রাম নগরীর ষোলশহর রেললাইন ও দুই নম্বর গেইট মোড় এলাকায় রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থীরা।

রবিবার (৭ জুলাই) বিকেল ৩টা থেকে সারাদেশে সর্বাত্মক অবরোধ কর্মসূচির ঘোষণা দেয় বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সমন্বয়ক ফাহিম নাহিদ।

তিনি বলেন, 'কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সবাই বাংলাদেশ ব্লকেড কর্মসূচিকে সফল করবেন। ঢাকার বাইরের শিক্ষার্থীরা জেলায় জেলায় মহাসড়ক অবরোধ করবেন।'

এছাড়াও সারাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি পালনের আহ্বান আসে কোটা বাতিলের আন্দোলন মঞ্চ থেকে।

এভিএস

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর