কাঁচাবাজার

দফায় দফায় বন্যা পরিস্থিতিতে লাগামহীন কৃষিপণ্য

সিলেটে বন্যার পর কৃষিপণ্য যেন লাগামহীন ঘোড়া। অতিবৃষ্টি ও দফায় দফায় বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ায় একদিকে যেমন ফসলের ক্ষয়ক্ষতি বাড়ছে অন্যদিকে তৈরি হচ্ছে বিক্রেতা থেকে ভোক্তা পর্যায়ে অসন্তুষ্টি। প্রত্যেক মৌসুমে সরবরাহ সংকট, পরিবহন খরচ নানা অজুহাত দেখালেও প্রাকৃতিক দুর্যোগ পুরো বাজার ব্যবস্থা করে দিয়েছে স্থবির।

দেশের বাজারে কাঁচামরিচের কেজি ৪শ' টাকা ছুঁয়েছে

কাঁচামরিচের দাম এবার ছুঁয়েছে ৪শ' টাকা। মেহেরপুরে এই দামে বিক্রি হচ্ছে। দাম বাড়ার প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে নেই রাজশাহী, মানিকগঞ্জ ও খুলনার বাজারও। ব্যবসায়ীরা বলছেন, বন্যায় মরিচের খেত নষ্ট হওয়ায় বেশি দামে মরিচ বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন তারা। আর ক্রেতাদের দাবি, সঠিক তদারকির অভাবে ইচ্ছেমতো বাড়ানো হচ্ছে দাম।

চট্টগ্রামে বাড়ছে নিত্যপণ্যের দাম

চট্টগ্রামে লাফিয়ে বাড়ছে নিত্যপণ্যের দাম। পেঁয়াজ, রসুন, মাছ-মাংস থেকে শুরু করে সবজি, সবকিছুই বিক্রি হচ্ছে চড়া দামে। কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের যৌক্তিক মূল্যের চেয়ে বেশি দামেই বিক্রি হচ্ছে ভোগ্য পণ্য। এজন্য বিক্রেতারা সরবরাহ সংকটকে দুষলেও ক্রেতারা বলছেন, দুষ্টচক্রের কবলে পড়েছে নিত্যপণ্যের বাজার।

বৃষ্টি ও জলাবদ্ধতায় ক্রেতাশূন্য রাজধানীর বাজার

বৃষ্টিতে সরবরাহ কমেছে নানা পণ্যের। টানা বৃষ্টি ও জলাবদ্ধতায় রাজধানীর বাজারগুলোতে ক্রেতা অনেকটাই কম ছিল। সপ্তাহ ব্যবধানে বেড়েছে আলু, পেঁয়াজ ও কাঁচামরিচের দাম। ১০ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত কমেছে অনেক সবজিতে। অন্যদিকে বন্যা ও বৃষ্টির কারণে সরবরাহ কম থাকায় বেড়েছে মাছের দামও।

পণ্যের দাম বাড়া নিয়ে শঙ্কায় পাইকারি বিক্রেতারাও

সবজির দাম বাড়লে যে শুধু ক্রেতারাই বিপাকে পড়েন তেমনটা নয়। খুচরা বিক্রেতা এমনকি পাইকারি বিক্রেতারাও থাকেন শঙ্কায়। সরবরাহ কম থাকায় চাহিদামতো পণ্য পাওয়া যায় না। পাশাপাশি পুঁজির সংকটও তৈরি হয়। তাই সবজিসহ যেকোনো পণ্যের দাম বৃদ্ধি কারও জন্যই সুখকর থাকে না।