কাঁচাবাজার
বাজার

হিলিতে একদিনে কাঁচা মরিচের কেজিতে দাম বেড়েছে ৭০ টাকা

ঈদুল আজহার আগে হঠাৎ করে দিনাজপুরের হিলিতে বেড়েছে কাঁচা মরিচের দাম। একদিনের ব্যবধানে কেজিতে ৭০ টাকা বেড়ে প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা কেজি দরে। আমদানি-রপ্তানি বন্ধের সুযোগে সিন্ডিকেট করে দাম বাড়ানোর অভিযোগ আছে ব্যবসায়ীদের, তবে সরবরাহ কমের অযুহাত রয়েছে আমদানিকারক ও পাইকারদের। মরিচের দাম বাড়ায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ ক্রেতারা।

আজ (শুক্রবার, ১৪ জুন) সকালে হিলি বাজার ঘুরে দেখা যায়, গতকাল (বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন) বিকেলে প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ১২০ থেকে ১৩০ টাকায় বিক্রি হলেও আজ সকালে তা বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকা কেজি দরে। আর পাইকারিতে বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা দরে। ঈদের আগে দাম বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন সাধারণ ক্রেতারা।

একজন ক্রেতা বলেন, ঈদের আগে হঠাৎ করে কাঁচা মরিচের দাম বাড়ায় আমাদের কিনতে সমস্যা হচ্ছে। রাতারাতি কেজিতে ৭০ টাকা বাড়াতে সবার হচ্ছে সমস্যা কিনতে। আমরা চাই সরকার বাজার নিয়ন্ত্রণ করুক।'

একজন বিক্রেতা বলেন, 'বাজারে চাহিদার তুলনায় কাঁচা মরিচের সরবরাহ কম থাকার কারণে কেজিতে ৬০ থেকে ৭০ টাকা দাম বেড়েছে। দাম বাড়ায় বিপদে পড়েছে আমাদের মতো সাধারণ মানুষ।'

হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারক শাহিনুর রেজা শাহিন বলেন, 'আজ শুক্রবার থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ রয়েছে। ফলে ভারত থেকে কোনো কাঁচা মরিচ আর আমদানি হবে না। ঈদের ছুটির পর আবারও আমদানি হতে পারে। যেহেতু কাঁচা মরিচ সংরক্ষণ করা যায় না, তাই গতকাল যে কাঁচা মরিচ আমদানি হয়েছে সঙ্গে সঙ্গে আমরা বন্দর থেকে বিক্রি করে দিয়েছি আমাদের সিন্ডিকেট করার কোনো সুযোগ নেই।'

হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিত রায় বলেন, 'কোনো ব্যবসায়ী যদি সিন্ডিকেট করে পণ্যের দাম বৃদ্ধি করার চেষ্টা করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমরা প্রতিনিয়তই বাজার মনিটরিং করছি।'

হিলি কাস্টমসের দেয়া তথ্যানুযায়ী, চলতি মাসের এখন পর্যন্ত ভারত থেকে সাড়ে ৬০০ টন কাঁচা মরিচ আমদানি হয়েছে এই বন্দর দিয়ে।

এমএসআরএস

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর