দক্ষিণ আমেরিকা
বিদেশে এখন
মুদ্রার মান ৫০ শতাংশ কমিয়েছে আর্জেন্টিনা
আর্জেন্টিনার মুদ্রা পেসোর মান অর্ধেক কমিয়ে ফেলার ঘোষণা দিয়েছেন নতুন অর্থমন্ত্রী। এখন এক ডলারের বিনিময়ে পাওয়া যাবে ৮০০ পেসো, যা আগে ছিল ৩৯১ পেসো।

অর্থনীতিকে সঠিক ধারায় ফিরিয়ে আনার অংশ হিসেবে এই ঘোষণা দিয়েছে প্রেসিডেন্ট হাভিয়ের মিলেইর নতুন সরকার। ছুটতে থাকা মূল্যস্ফীতিকে দ্রুত নিয়ন্ত্রণ ও দারিদ্র্যের হার ৪০ থেকে ২০ শতাংশে নামিয়ে আনাই এখন মূল লক্ষ্য।

দেশটির অর্থমন্ত্রী লুইস ক্যাপুটো বলেন, 'সাময়িকভাবে আমদানির ওপর কর বাড়িয়ে অকৃষি পণ্য রপ্তানিতে কর স্থগিত করা হবে। এতে রপ্তানিকারকরা উপকৃত হবেন। এছাড়া সব খাতের জন্য করের বোঝা সমান করে কৃষি খাতের বৈষম্য দূর করা হবে। আর আর্জেন্টিনার অবকাঠামো উন্নয়নের কাজ বেসরকারি খাতের মাধ্যমে পরিচালিত হবে। কারণ, বর্তমানে রাষ্ট্রের কাছে এই প্রকল্প চালানোর মতো অর্থ নেই।'

স্থানীয় নাগরিকরা বলেন, 'দামের এই ঊর্দ্ধগতিতে আমরা কতদিন টিকে থাকতে পারবো জানি না। আমাদের আয় নেই, কিন্তু জিনিসপত্রের দাম আকাশছোঁয়া। সবকিছু বদলে অর্থনীতি ঠিক হয়ে যাবে এই আশা করা ছাড়া আমাদের আর উপায় নেই।'

কয়েক দশক ধরে চরম আর্থিক সংকটে আছে দক্ষিণ আমেরিকার দেশ আর্জেন্টিনা। শস্য উৎপাদনের জন্য বিখ্যাত দেশটির বার্ষিক মূল্যস্ফীতি ১৫০ শতাংশ ছাড়িয়ে গেছে। সরকার ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হাতে তেমন অর্থ নেই। ৫ ভাগের ২ ভাগ জনগণ এখনও দারিদ্র্য সীমার নিচে বাস করছেন।

আর্জেন্টিনা এখন ঋণে ডুবে আছে, বিদেশ থেকেও নতুন ঋণ মিলছে না। আবার আইএমএফ-এর কাছ থেকে নেয়া ৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলার ঋণ পরিশোধের সক্ষমতাও নেই। অন্যদিকে প্রতিদিন হু হু করে নিত্যপণ্যের দাম বাড়ছে। মুদ্রাস্ফীতির চাপ থেকে মুক্তি চায় দেশের জনগণ।

এওয়াইএইচ