দেশে এখন
শিক্ষা

৪০ শিক্ষার্থী নিয়ে আজগর আলী মেডিকেল কলেজের যাত্রা শুরু

প্রথম ব্যাচে ৪০ জন শিক্ষার্থী ভর্তির মাধ্যমে যাত্রা শুরু করলো আজগর আলী মেডিকেল কলেজ। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আধুনিক পাঠদান এবং সেবার নিশ্চয়তা দিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এছাড়া দেশ সেরা প্রতিষ্ঠান হিসাবে গড়ে তুলতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টার কথাও জানান কলেজের শিক্ষক ও উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্টরা।

শপথ বাক্য পাঠের মাধ্যমে যাত্রা শুরু হলো ভবিষ্যৎ চিকিৎসকদের। এই ৪০ শিক্ষার্থীর সবাই আজগর আলী মেডিকেল কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী।

এতদিন ধরে সুনামের সঙ্গে দেশের মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিয়েছে আজগর আলী হাসপাতাল। সিটি গ্রুপের প্রয়াত চেয়ারম্যান ফজলুর রহমানের স্বপ্ন পূরণে এবার তাদের লক্ষ্য, চিকিৎসক হিসেবে তৈরি করতে হবে তরুণ-তরুণীদের। তাই ২০২৩-২৪ বর্ষে শিক্ষার্থী ভর্তির মাধ্যমে যাত্রা হলো আজগর আলী মেডিকেল কলেজের। একঝাঁক তরুণ-তরুণী চিকিৎসক হতে বেছে নিয়েছেন এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে।

নতুন শিক্ষার্থীদের একজন বলেন, 'ভালো ডাক্তার হতে চাই। বাবা মার স্বপ্ন পূরণ করতে চাই।' 

শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে উপস্থিত ছিলেন অভিভাবকেরাও। জানালেন, সন্তানকে নিয়ে দীর্ঘদিনের আশা পূরণে ভরসা রাখছেন নতুন কিন্তু সম্ভাবনাময় এই প্রতিষ্ঠানের উপর।

তাদের একজন বলেন, 'তাদের সেবার কারণে আমাদের এইটা পছন্দ হয়েছে। তারা যেন সমাজ ও দেশের জন্য কাজ করতে পারে এইটাই প্রত্যাশা।'

শিক্ষার্থী, তাদের অভিভাবক এবং শিক্ষকদের সম্মিলনে আজগর আলী মেডিকেল কলেজ সেরা হিসেবে গড়ে উঠবে বলে জানান বক্তারা। আর পাঠদানের সব সুযোগ-সুবিধা বর্ণনা করে দেশের অন্যান্য মেডিকেল কলেজ থেকে গুণগত মানে আলাদা হবার প্রতিশ্রুতি দিলেন কলেজের অধ্যক্ষ।

আজগর আলী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মো. মিজানুর রহমান বলেন, 'আমাদের সৌভাগ্য আমরা দীর্ঘ অভিক্ষতা সম্পন্ন কিছু শিক্ষক ও তরুণ শিক্ষক পেয়েছি যারা আমাদের সন্তানদেরকে শিক্ষাদান করবে।'

সিটি গ্রুপের উপদেষ্টা এ কে এম রাশিদুজ্জামান বলেন, 'আগামী দিনগুলোতে পথ চলে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যেতে সবার প্রতি সবিনয় অনুরোধ থাকবে।'

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. সিতেশ চন্দ্র বাছার। তিনি বলেন, 'আজগর আলী মেডিকেল কলেজের পাঠদানের মান ও শিক্ষা কার্যক্রমের ওপর সবসময় নজর রাখবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।'

'বর্ন টু সেভ লাইভস' স্লোগান নিয়ে দেশের স্বাস্থ্যসেবায় অবদান রাখা এবং পরবর্তী প্রজন্মকে গড়ে তুলবার প্রত্যাশার কথা জানান মেডিকেল কলেজ সংশ্লিষ্টরা।

ইএ

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর