ইউরোপ
বিদেশে এখন
সাগরপথে অভিবাসন প্রত্যাশী নিয়ে সকর্ত ইতালি
সাগরপথে অবৈধ অভিবাসন প্রত্যাশীদের নিয়ে কাজ করছে ইতালি সরকার। ফলে কমছে দেশটিতে অভিবাসন প্রত্যাশী প্রবেশের সংখ্যা। চলতি বছরের প্রথম ৩ মাসে ভূমধ্যসাগর দিয়ে ইতালিতে প্রবেশ করা অভিবাসন প্রত্যাশীর সংখ্যা কমেছে ৫০ শতাংশ।

স্বপ্ন পূরণের আশায় জীবনবাজি রেখে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে অনেকে আসেন ইতালি। এমন লাখো স্বপ্নের সলিল সমাধি ঘটেছে এই সাগরেই। তবে সরকার কঠোর হওয়ায় সাম্প্রতিক সময়ে কমতে শুরু করেছে অবৈধভাবে ইতালিতে আসা অভিবাসন প্রত্যাশীর সংখ্যা।

ইতালির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, ২০২২ ও ২০২৩ সালের প্রথম ৩ মাসের চেয়ে চলতি বছর একই সময়ে অভিবাসন প্রত্যাশী আসার হার কমেছে ৫০ শতাংশ। ইউরোপের অন্যতম শক্তিশালী দেশটিতে ঢুকতে ব্যর্থ হলেও সমুদ্রে দুর্ভোগ ও প্রাণহানির শিকার হচ্ছেন বিপুল সংখ্যক অভিবাসন প্রত্যাশী।

চলতি বছর ২২ মার্চের মধ্যে ইতালি এসেছেন প্রায় সাড়ে ৯ হাজার অভিবাসন প্রত্যাশী। যাদের মধ্যে অপ্রাপ্তবয়স্ক প্রায় ৭০০ জন। গেল বছর দুই হাজার অপ্রাপ্তবয়স্কসহ ইতালিতে অভিবাসন প্রত্যাশীর সংখ্যা ছিল রেকর্ড ২০ হাজার ৩৬৪ জন।

অভিবাসন রুটের মধ্যে সবচেয়ে মারাত্মক হিসেবে বিবেচনা করা হয় ভূমধ্যসাগরকে। তবুও এই পথ পাড়ি দিয়ে অভিবাসন প্রত্যাশীরা চেষ্টা করেন ইউরোপের দক্ষিণে পৌঁছানোর। গেল সপ্তাহে লিবিয়া উপকূল থেকে বাংলাদেশিসহ ১৩৯ জন অভিবাসন প্রত্যাশীকে উদ্ধার করে একটি তেলবাহী ট্যাংকার।

২০২৩ সালে ভূমধ্যসাগার পাড়ি দিতে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছেন বা মারা গেছেন গত ৬ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩ হাজার ১২৯ জন।

এমএসআরএস