ফুটবল
এখন মাঠে
দানি আলভেজের সাজার মেয়াদ কমিয়েছে আদালত
ধর্ষণ মামলায় দণ্ডিত দানি আলভেজের ক্ষতিপূরণের দেড় লাখ ইউরোর পুরোটাই দিয়েছেন তার সতীর্থ নেইমার। এমনটাই জানিয়েছে ব্রাজিলের সংবাদ মাধ্যম ইউওএল।

শেষ পর্যন্ত ধর্ষণের অভিযোগে ব্রাজিলিয়ান ফুটবল তারকা দানি আলভাজকে কারাদণ্ড পেতে হয়েছে। ক্ষতিপূরণও দিতে হয়েছে।

মূলত ১২ বছরের কারাদণ্ড চেয়েছিলেন ভুক্তভোগীর আইনজীবী। আর স্পেনের রাষ্ট্রীয় কৌঁসুলিরা চেয়েছিলেন ৯ বছরের কারাদণ্ড। তবে এই সাজা কিছুটা কমেছে ক্ষতিপূরণের টাকা পরিশোধ করায়। যদিও তা দেয়ার আপতত সুযোগ ছিল না আলভেজের। কিন্তু তাকে এই বিপদ থেকে বাঁচিয়েছেন সতীর্থ নেইমার। ক্ষতিপূরণের দেড় লাখ ইউরো আগেই স্পেনের আদালতে পাঠিয়েছেন তিনি। যার ফলে সাজা কমে সাড়ে চার বছর হয়েছে।

২০২২ সালের ডিসেম্বরে বার্সেলোনার নৈশক্লাবে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে গেল বছর জানুয়ারিতে মামলা হয় আলভেজের বিরুদ্ধে। সে মাসেই গ্রেপ্তার হন আলভেজ। এরপর থেকে স্পেনে কারাবন্দী জীবন কাটছিল তার। জেলখানায় আটক থাকা অবস্থায় আলভেজ ব্রাজিলে নিজের সম্পদের সাহায্যও নিতে পারেননি।

এমনকি সাবেক স্ত্রী দিনোরাহ সানতানার সঙ্গে বিচ্ছেদ হওয়ার পর আদালতের নির্দেশে ব্রাজিলে তাঁর সম্পত্তি জব্দ করা হয়। ফলে অনেকটা কোণঠাসা হয়ে পড়েন সাবেক এই বার্সা তারকা। অথচ একসময় ৪ কোটি ৭০ লাখ পাউন্ড মূল্যের সম্পদের মালিক ছিলেন আলভেজ।

প্রথমিক পর্যায়ে ধর্ষণের বিষয়টি অস্বীকার করলেও পরে ভুক্তভোগীর সম্মতিতেই এমনটা হয়েছে বলে দাবি করেন এই রাইট ব্যাক। তবে তা ধোপে টেকেনি আদালতে। যদিও রায়ের বিরুদ্ধে দানি আলভেজের আপিল করার সুযোগ আছে।

এওয়াইএইচ