দেশে এখন

‘ভোক্তা অধিকার আইনের দুর্বলতার পাশাপাশি জনবল সংকট রয়েছে’

জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) এ এইচ এম সফিকুজ্জামান বলেছেন, 'ভোক্তা অধিকার আইনের কিছুটা দুর্বলতার পাশাপাশি জনবল সংকট রয়েছে। ১৭টি জেলায় অধিদপ্তরের কোন কর্মকর্তা নেই। তারপরও সারাদেশে প্রতিদিন অধিদপ্তরের ৪০ থেকে ৫০টি টিম দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।’

আজ (শুক্রবার, ১০ মে) বিকেলে কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) আয়োজনে এবং জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন ক্যাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি জামিল চৌধুরী।

মহাপরিচালক বলেন, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন সংশোধনের কাজ চলমান রয়েছে। আর নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির পেছনে আর্ন্তজাতিক বাজারের মূল্য বৃদ্ধি, পরিবহন ব্যয় বৃদ্ধি, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ ও ডলার সংকটের প্রভাব রয়েছে। তবে অযৌক্তিক মূল্য বৃদ্ধির ক্ষেত্রে কোন অসাধু ব্যবসায়ী জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

তিনি আরও বলেন, ‘সাংবাদিকদের অনুসন্ধানী প্রতিবেদন ও তথ্যের ভিত্তিতে অধিদপ্তর অনেক গুরুত্বপূর্ণ অভিযান পরিচালনা করেছে। এছাড়া সাংবাদিকরা প্রচারের মাধ্যমে ভোক্তা অধিদপ্তরের কার্যক্রম ও সেবা ভোক্তাদের মাঝে পৌঁছে দিচ্ছে।’

সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য দেন ক্যাবের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ মিজানুর রহমান। এ সময় অন্যদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম, অধিদপ্তরের পরিচালক (কার্যক্রম ও গবেষণাগার) ফকির মুহাম্মদ মুনাওয়ার হোসেনসহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর