স্বাস্থ্য
দেশে এখন

চট্টগ্রামে বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিকে কর্মবিরতি

চট্টগ্রামে বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিকে চিকিৎসকদের ২৪ ঘন্টার কর্মবিরতিতে ভোগান্তিতে রোগী ও স্বজনরা। সম্প্রতি পটিয়া জেনারেল হাসপাতাল ও নগরীর মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসকের উপর হামলার প্রতিবাদে চিকিৎসা সেবা বন্ধ রেখেছেন তারা। তবে আগে থেকে ভর্তি থাকা রোগী ও জরুরী সেবা চালু রয়েছে। বন্ধ ডাক্তারদের চেম্বার ও রোগ নির্ণয় কার্যক্রম।

একদিকে চিকিৎসকদের কর্মবিরতি অন্যদিকে বন্ধ রয়েছে রোগ নির্ণয় কার্যক্রম। তবে আগে থেকে ভর্তি থাকা রোগীদের সেবা ও রোগ নির্ণয়ের রিপোর্ট ডেলিভারি দেয়া হচ্ছে।

ভোর ৬টা থেকে বেসরকারি হাসপাতাল এবং ক্লিনিকে চিকিৎসা না দেয়ায় মুমূর্ষ রোগী নিয়ে কেউ কেউ অনিশ্চিত অপেক্ষা করছেন, কেউ আবার ফিরে যাচ্ছেন। এই চিত্র চট্টগ্রাম জেলা, উপজেলার বেসরকারি সকল হাসপাতাল- ক্লিনিকে। ধর্মঘটের কথা আগে থেকে না জানায় কুমিল্লা, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ পার্শ্ববর্তী জেলা থেকে আসা রোগীদের ভোগান্তি বেড়েছে দ্বিগুণ।

ডাক্তার দেখাতে আসা একজন বলেন, 'তারা যদি আগে থেকে বলতো এইদিন কর্মবিরতিতে থাকবো তাহলে আমাদের জন্য ভোগান্তি হতো না।'

আরেকজন বলেন, 'আজকে পরীক্ষা করাতে হবে কিন্তু এসে শুনছি ডাক্তাররা ধর্মঘট ডেকেছে।'

তবে কিছু জায়গায় ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে। জটিল রোগী ভর্তি, রোগ নির্ণয় কার্যক্রম চালু রয়েছে।

চিকিৎসক নেতারা বলছেন, কর্তব্যরত চিকিৎসকদের উপর হামলাকারীদের শাস্তি এবং কর্ম ক্ষেত্রে চিকিৎসকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত না করা পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলবে।

চট্টগ্রাম শাখা বিএমএ'র সাধারণ সম্পাদক ডা. মোহাম্মদ ফয়সল ইকবাল চৌধুরী বলেন, 'এই কর্মসূচি একা বিএমএ’র না এইটা সকল চিকিৎসক সংগঠনের এবং বেসরকারি ক্লিনিক মালিকদের সম্মলিত সিদ্ধান্তে এই আন্দোলন।'

সম্প্রতি নগরীর মেডিকেল সেন্টার ও পটিয়া উপজেলার জেনারেল হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসকের উপর দুর্বৃত্ত ও রোগীর স্বজনদের হামলার প্রতিবাদে গেল কয়েকদিন ধরে মানববন্ধন, বিক্ষোভ সমাবেশসহ কর্মবিরতি পালন করছে সরকারি বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

ইএ

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর