তথ্য-প্রযুক্তি , এশিয়া
বিদেশে এখন

সূর্যজয়ের দ্বারপ্রান্তে মহাকাশযান আদিত্য এল ওয়ান

১২৬ দিন মহাকাশে কাটানোর পর অবশেষে সূর্য বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে মহাকাশযান আদিত্য এল ওয়ান।

সব ঠিক থাকলে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৪টায় মহাকাশযানটিকে স্থাপন করা হবে সূর্যের হ্যালো অরবিটে। আগামী ৫ বছর ধরে সূর্যের গবেষণা করবে ৪০০ কোটি রুপির আদিত্য এল ওয়ান।

গেল বছর চন্দ্রবিজয়ের মাধ্যমে ইতিহাস গড়েছিলো ভারত। দেশটির জন্য ২০২৪ এর শুরুটা হতে যাচ্ছে সূর্য বিজয়ের মাধ্যমে। এক হাজার ৫০০ কেজি ওজনের মহাকাশযান আদিত্য এল ওয়ান পৌঁছে গেছে গন্তব্যের কাছাকাছি। বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে চারটায় মহাকাশযানটিকে স্থাপন করা হবে সূর্যের হ্যালো অরবিটে। এর মাধ্যমে দেশটির ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সূর্যকে আগমনী বার্তা দেয়ার দ্বারপ্রান্তে ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো।

গেল বছর চন্দ্রবিজয়ের ১০ দিন পর সূর্য নিয়ে গবেষণা করতে যাত্রা শুরু করে সৌরযান আদিত্য এল ওয়ান। গন্তব্যস্থল, পৃথিবী থেকে ১৫ লাখ কিলোমিটার দূরে মধ্যাকর্ষণ শক্তি নিরপেক্ষ স্থান মহাকাশের এল ওয়ান পয়েন্টের হ্যালো কক্ষপথ। সফলভাবে সৌরযানটিকে কক্ষপথে স্থাপন না করতে পারলে সূর্যের আকর্ষণে আদিত্য এল ওয়ান পতিত হবে সূর্যের বুকে।

৪০০ কোটি রুপিতে নির্মিত সৌরযানটি নিজের সঙ্গে নিয়ে গেছে ৭টি পে-লোড। যাদের ইলেকট্রো ম্যাগনেটিক পার্টিকেল ও ম্যাগনেটিক ফিল্ড ডিটেক্টরের মাধ্যমে আগামী ৫ বছর গবেষণা করা হবে সূর্যের বিভিন্ন স্তর।

এছাড়াও সূর্যের ওপর আদিত্য এল ওয়ানের বিরামহীন নজরদারির মাধ্যমে আগেভাগেই সতর্ক করা যাবে সৌরঝড়ের মাধ্যমে সৃষ্ট ইলেক্ট্রো-চৌম্বকীয় প্রভাব সম্পর্কে। ফলে সৌর ব্যতিচারের কবল থেকে রক্ষা পাবে পৃথিবীর পাওয়ার, ইলেকট্রিক্যাল ও কমিউনিকেশ নেটওয়ার্ক।

শুধু পৃথিবীই নয়, আদিত্য এল ওয়ানের কারণে উপকৃত হবে মহাকাশে স্থাপিত প্রায় ৭ হাজার ৮০০ কৃত্রিম উপগ্রহ। যার মধ্যে ৫০ হাজার কোটি রুপির ৫০টির বেশি উপগ্রহ আছে ভারতের।

এমএসএ

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর