বিদেশে এখন

সন্ধ্যায় শপথ নিচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি

টানা তৃতীয় মেয়াদে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিতে যাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি। আজ (রোববার, ৯ জুন) সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় ভারতের রাষ্ট্রপতি ভবন রাইসিনা হিলস চত্বরে তিনি শপথ নেবেন। মোদির সঙ্গে একই অনুষ্ঠানে শপথ নেবেন ৩০ এর অধিক মন্ত্রী।

জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনে যোগ দিতে দিল্লি পৌঁছেছেন কয়েকটি দেশের রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধান। দিল্লির রাজঘাটে ভারতের জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর প্রতি শ্রদ্ধা অর্পণ করেন নরেন্দ্র মোদি। এর মধ্য দিয়েই রোববার শপথ গ্রহণ দিনের রাষ্ট্রীয় কর্মসূচি শুরু করেন নবনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী।

স্বাধীন ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুর প্রায় পাঁচ দশক পর, টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় এসে ইতিহাস গড়েছেন ৭৩ বছর বয়সী বিজেপি নেতা। শপথ গ্রহণের আগে বিজেপির প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী প্রয়াত অটল বিহারি বাজপায়ির প্রতিও শ্রদ্ধা জানান মোদি। এছাড়া ন্যাশনাল ওয়ার মেমোরিয়ালেও পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

দেশি-বিদেশি আট হাজার অতিথির উপস্থিতিতে স্থানীয় সময় রোববার সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে রাষ্ট্রপতি ভবনে শপথ নেবেন মোদি। তাকে শপথ পড়াবেন ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু। একই অনুষ্ঠানে শপথ নেবেন আরও প্রায় ৩০ জন মন্ত্রী।

৫৪৩ আসনের লোকসভায় দলগতভাবে ২৪০ এবং জোটগতভাবে ২৯৩ আসন নিয়ে এবার সরকার গঠন করছে বিজেপি। একক সরকার গঠনে ন্যূনতম ২৭২ আসন মেলেনি বলে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়ে এক দশক পর জোটের ওপর নির্ভর করে সরকার গঠন করতে হচ্ছে ক্ষমতাসীনদের। জোট সরকারে থাকবে বিহারের জনতা দল ও তেলেঙ্গানার তেলেগু দেশাম পার্টি। এর মধ্যে জনতা দল থেকে অন্তত দুজন মন্ত্রিসভায় ঠাঁই পেতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট ছেড়ে বেরিয়ে আসা এককালের ঘনিষ্ঠ শিব সেনাও এবার জোটে ফিরতে পারে বলে চলছে জোর গুঞ্জন।

ভারতীয় পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় বিরোধী দলীয় নেতা হিসেবে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট মল্লিকার্জুন খাড়গে উপস্থিত থাকবেন মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে। তবে বিরোধী ইন্ডিয়া জোটের অন্যতম সদস্য ও মোদির কট্টর বিরোধী পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস যোগ দেবে না আয়োজনে।

জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজনে যোগ দিতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কমল দহল প্রচণ্ড, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট রনিল বিক্রমাসিংহেসহ সার্ক রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানদের অনেকে এরই মধ্যে পৌঁছেছেন দিল্লিতে।

নতুন প্রধানমন্ত্রীর শপথগ্রহণ উপলক্ষে মোদির ছবি সম্বলিত পোস্টারে ছেয়ে গেছে রাজধানী দিল্লির রাস্তাঘাট। সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে দিল্লিতে মোতায়েন করা হয়েছে ১ হাজার ১০০ ট্রাফিক পুলিশ। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে রাজধানী দিল্লির আকাশসীমায় দু'দিন কোনো ফ্লাইট চলাচল করবে না। রবি ও সোমবারের জন্য দিল্লিকে নো ফ্লাইং জোন হিসেবে ঘোষণা করে আদেশ জারি করেছে দিল্লি পুলিশ।


আসু

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর