বাজার , কাঁচাবাজার
অর্থনীতি

ডলার সংকটের পরেও ৬শ’কোটি টাকার মসলা আমদানি

ঈদুল আজহার আগে মসলার জমজমাট বেচাকেনা চলছে চট্টগ্রামের পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে। চাহিদা বাড়ায় এক মাসের ব্যবধানে বেড়েছে পেঁয়াজ, আদা, এলাচ, লবঙ্গসহ বেশ কিছু মসলার দাম। যদিও ডলার সংকটের মধ্যেও আগের বছরের চাইতে আমদানি হয়েছে ৬শ' কোটি টাকা বেশি। সরবারহ সংকট না থাকলেও সিন্ডিকেটের কারণে খাতুনগঞ্জে বাড়ছে মসলার দাম এমন অভিযোগ খুচরা বিক্রেতাদের।

কোরবানির ঈদ ঘিরে পেঁয়াজ, রসুন আদার পাশাপাশি লাগে বিপুল পরিমাণ মসলা। তাই এখন জমজমাট দেশের ভোগ্যপণ্যের বৃহৎ পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জ। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত সারাদেশের খুচরা বিক্রেতারা ছুটে আসছেন এ বাজারে। আড়তে আড়তে পণ্য ওঠা-নামানোর কাজে ব্যস্ততা বেড়েছে শ্রমিকদের।

দেশে ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রথম ৯ মাসে মসলা আমদানি হয়েছে প্রায় ৩ হাজার ৮৫২ কোটি টাকার। এর আগের অর্থবছরে আমদানি হয়েছে ৩ হাজার ২শ’ কোটি টাকার। অর্থাৎ চলতি বছর আগের বছরের চেয়ে অন্তত ৬শ' কোটি টাকার বেশি মসলা আমদানি হয়েছে দেশে। তবে এর মধ্যে ব্যতিক্রম পেঁয়াজ। এবছর উল্টো আমদানি কমেছে পণ্যটির। কারণ দেশি পেঁয়াজেই ভরপুর বাজার। এবার দেশি পেঁয়াজে চাহিদা মিটবে কোরবানির। তবে চাহিদা বাড়ায় চড়েছে পেঁয়াজের দাম।

খুচরা বিক্রেতাদের একজন বলেন, 'বেশিরভাগ এখন দেশি পেঁয়াজ আসছে পাবনা, রাজবাড়ি ও ফরিদপুর থেকে।'

চলতি বছর ২শ' ৫৪ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রায় ৩০ হাজার টন আদা এসেছে দেশে। বেশিরভাগ আদাই আসছে চীন ও মিয়ানমার থেকে। তবে আদার বাজারে চলছে পণ্যের ঘাটতি। তবে, গত এক মাসে বাজারে প্রতি কেজি আদায় দাম বেড়েছে প্রায় ৮০ টাকা। খুচরায় বিক্রি হচ্ছে ২৬০ টাকায়।

খাতুনগঞ্জের পাইকারদের একজন বলেন,  'আমদানির কারণে আদার দাম বাড়তি এখন। আর বেশি দাম হওয়ার কারণে বিক্রি কম।' 

বেশ কিছুদিন ধরেই অপরিবর্তিত রসুনের বাজার। বাজারে চাহিদার তুলনায় বেশি পণ্য আমদানি হয়েছে বলে দাবি ব্যবসায়ীদের। আমদানি করা এসব রসুন বিক্রি না হলে মান খারাপ হওয়ার শঙ্কায় ব্যবসায়ীরা। তাই দ্রুত বিক্রি করে দিচ্ছেন আড়তদাররা। ফলে ১৭৫ থেকে ১৮৫ টাকায় মিলছে আমদানি করা এ পণ্যটি।

চট্টগ্রাম বন্দরে চলতি বছর ৪৯টি কনটেইনারে এখন পর্যন্ত এলাচ এসেছে প্রায় ১ হাজার ২৪০ টন। দাম পড়েছে ১৬৫ কোটি টাকা। পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে এক মাসের ব্যবধানে ২৭শ' টাকা থেকে বেড়ে প্রতি কেজি এলাচ বিক্রি হচ্ছে ৩৬শ' থেকে ৩৮শ' টাকায়। বেড়েছে জিরা, দারচিনি, লবঙ্গের দামও।

ইএ

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর