ফুটবল
এখন মাঠে

ময়মনসিংহে ফেডারেশন কাপের ফাইনালে দর্শকের ঢল

ফেডারেশন কাপের ফাইনালে মোহামেডান ও বসুন্ধরা কিংসের খেলায় দর্শকের ঢল নেমেছিল ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূঁইয়া স্টেডিয়ামে। স্থানীয়রা ছাড়াও ময়মনসিংহের বিভিন্ন উপজেলা ও আশপাশের জেলা থেকেও বাস-ট্রাকে করে দর্শক আসে স্টেডিয়ামে। খেলা শুরুর আগেই কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায় স্টেডিয়ামের পুরো গ্যালারি। টানটান উত্তেজনার জমজমাট ফাইনাল দেখে উচ্ছ্বসিত দর্শকেরা।

একে তো ভ্যাপসা গরম। তার ওপর গ্যালারীর তিনদিকের প্রায় পুরোটা জুড়েই দর্শকদের মুখের উপর সূর্যের প্রবল তাপ। কেউ ছাতা, কেউ শার্ট বা জার্সি মাথায় পেঁচিয়ে ফুটবলপ্রেমীরা এসেছেন ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভুঁইয়া স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে। তারপরও দর্শকদের উচ্ছ্বাস আর উল্লাসের কমতি নেই।

স্টেডিয়ামের গ্যালারি প্রায় কানায় কানায় পূর্ণ। কিংস আর মোহামেডানের পতাকাও ছিল সমর্থকদের হাতে হাতে।

গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ঢাকা থেকে দর্শক নিয়ে আসে বসুন্ধরা কিংস। ময়মনসিংহের বিভিন্ন উপজেলা থেকেও বেশকয়েকটি বাসে দর্শকরা আসে ফাইনালের সাক্ষী হতে। পিছিয়ে ছিলো না মোহামেডানের সমর্থকেরাও। সাদাকালো আর লালের জার্সিতে একাকার গ্যালারির দুই পাশ। টান টান উত্তেজনার ফেডারেশন কাপের ফাইনাল দারুন উপভোগ করেছেন দর্শকরা।

একজন দর্শক বলেন, 'ময়মনসিংহে এই স্টেডিয়ামে এমন খেলা আগে হয়েছে কি না জানা নেই। আমরা যে রকম আশা করেছলাম, আজকের খেলাটি ঠিক সে রকমই উপহার পেয়েছি। খেলায় উথত্তেজনা ছিল টান টান।'

নির্ধারিত ৯০ মিনিটে ১-১ গোলে সমতা থাকলেও অতিরিক্ত সময়ের দেয়া গোলে মোহামেডানকে ২-১ গোলে হারায় বসুন্ধরা কিংস। উল্লাসে ফেটে পড়ে বসুন্ধরার সমর্থকরা।

মাঠ ভরা এমন দর্শকের সামনে খেলায় কিছুটা চাপ থাকলেও রোমাঞ্চিত ফুটবলাররা। দর্শকদের উল্লাস আর উচ্ছাসের মুহুর্মুহু শ্লোগান উপভোগ করেছেন তারাও।

বসুন্ধরা কিংসের ফুটবলার তপু বর্মণ বলেন, 'এ সিজনে আমরা ট্রেবল চ্যাম্পিয়ন। আগের সিজনে আমরা চেষ্টা করেছি কিন্তু পারিনি। এই সিজনে করতে পেরেছি। আমার কাছে মনে হয় এটা বিশাল বড় একটা অ্যাচিভমেন্ট।'

এদিকে ফেডারেশন কাপের ফাইনালে দর্শক টানতে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা ছিলো জেলা ফুটবল ফেডারেশনের। আর দর্শকদের আগ্রহ ও উন্মাদনা কথা বিবেচনায় নিয়ে তৃণমুল পর্যায়ে ফুটবলের এমন বড় বড় আসর আয়োজন করছে ফুটবল ফেডারেশন।

ময়মনসিংহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি এ কে এম দেলোয়ার হোসেন মুকুল বলেন, 'ফেডাএরশন কাপের ফাইনাল খেলা আমাদের ময়মনসিংহে দিয়েছে। এটি অত্যন্ত গর্বের বিষয়। এই প্রথম এমন বড় টুর্নামেন্টের ফাইনাল আমরা করতে পেরেছি।

বাফুফের মিডিয়া ম্যানাজার জাকির হোসেন চৌধুরী বলেন, 'ফুটবল খেলা প্রচার করার জন্য বিভিন্ন জেলায় এখন ফেডারেশন কাপ খেলা দেয়া হচ্ছে। আমরা বিপিএল, বিসিএল এবং ফেডারেশন কাপ সারা বাংলাদেশে প্রতিটি জেলায় আমরা করার চিন্তা-ভাবনা করেছি।'

১৫ হাজার দর্শক ধারণ ক্ষমতাসম্পন্ন রফিক উদ্দিন স্টেডিয়ামে ২০ হাজারের বেশী দর্শক ফেডারেশন কাপের ফাইনাল উপভোগ করেছেন বলে ধারনা ডিএফের।

২০১৬ সালের বিপিএলের পর দর্শকের এমন উন্মাদনা আর দেখেনি রফিক উদ্দিন ভুইয়া স্টেডিয়াম। ফেডারেশন কাপ ফাইনালের এই দর্শক, উচ্ছাস, উন্মাদনাই বলে দেয় এখনও ফুরিয়ে যায়নি ফুটবলের জনপ্রিয়তা।

এমএসআরএস

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর