বিদেশে এখন
যুদ্ধ
হামাস নির্মূলে রাফায় অভিযান চলবে: নেতানিয়াহু
যুক্তরাষ্ট্রের কড়া সতর্কবার্তার পরও হামাস নির্মূলে গাজার দক্ষিণাঞ্চলে রাফায় সেনা অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। গাজার বৃহত্তম আল শিফা হাসপাতালেও চলছে আইডিএফের অভিযান। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, গাজায় সদ্য জন্ম নেয়া শিশুরাও এখন মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে। পশ্চিমতীরেও অভিযান অব্যাহত রেখে সেখানে জোরপূর্বক বসতি গড়ছে ইসরাইলি দখলদাররা।

যুদ্ধবিধ্বস্ত গাজা থেকে শরণার্থী শিবির রাফায় আশ্রয় নেয়া মানুষের মাঝে ইসরাইলের স্থল অভিযান অনেক বড় ভুল সিদ্ধান্ত হবে যুক্তরাষ্ট্রের এমন হুশিয়ারির পরও হামাস নির্মূলে এই শরণার্থী শিবিরে অভিযান চালাবে আইডিএফ।

পাল্টা হুশিয়ারি দিয়ে বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেন, এই গোষ্ঠীকে পুরোপুরি শেষ করতে স্থল অভিযান পরিচালনার বিকল্প নেই। ইসরাইলের দাবি, মিশরের সীমান্ত সংলগ্ন রাফায় হামাসের বড় ঘাঁটি আছে। এদিকে নুসাইরাত শরণার্থী শিবিরে ইসরাইলের হামলায় প্রায় গেছে ২৭ জনের।

তিনি বলেন, 'রাফায় স্থল অভিযান পরিচালনা নিয়ে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের তর্ক হয়েছে। এ অভিযানের প্রয়োজনীয়তা তাদের বোঝানোর চেষ্টা করেছি। হামাস নির্মূল করা এখন বেশি জুরুরি। এটা ছাড়া অন্য কোনো উপায় দেখছি না। এজন্য সরাসরি তাদের ঘাঁটিতে হামলা করে ঘাঁটি ধ্বংস করতে হবে। আর সেটাই করবো। জো বাইডেনকে পরিষ্কার করে বলতে চাই, রাফা থেকে হামাসকে উৎখাত করবোই। স্থল অভিযানের বিকল্প নেই।'

এদিকে গাজায় সেনা অভিযানের মধ্যেই অধিকৃত পশ্চিম তীরেও চলছে ইসরাইলি সেনাদের তাণ্ডব। অবৈধ দখলদাররা একটু একটু করে পশ্চিম তীরের অনেক এলাকা জোরপূর্বক দখল করে নিচ্ছে। ফিলিস্তিনের সাধারণ মানুষের ওপর হামলার পাশাপাশি অবৈধ রাস্তা তৈরি করছে, যা ফিলিস্তিনিদের থাকার জায়গাকে আরও সংকুচিত করে দিচ্ছে। স্যাটেলাইটের তথ্য বলছে, ২০২৩ সালের অক্টোবার থেকে ২০২৪ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত অবৈধ ১৫ টি ঘাঁটি আর ১৮ টি রাস্তা তৈরি করেছে দখলদাররা। সঙ্গে দখলদাররা অব্যাহত রেখেছে রাস্তা অবরোধের প্রক্রিয়া।

অব্যাহত আছে গাজার আল শিফা হাসপাতালে আইডিএফ'এর অভিযান যেখানে আশ্রয় নিয়েছে হাজার হাজার মানুষ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, ক্ষুধার কারণে সদ্য জন্ম নেয়া শিশুরা আছে মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে। আল আকসা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, এখানকার সব রোগীই অপুষ্টিতে ভুগছে। বিশ্বব্যাংক বলছে, গাজার অর্ধেকের মানুষ দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে আছে। এই অবস্থায় সাধারণ মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করছে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে।

গাজার বাসিন্দারা বলেন, 'যুক্তরাষ্ট্র এই অঞ্চল নিয়ন্ত্রণ করছে। ২৪ ঘন্টায় তারা যুদ্ধ বন্ধ করতে পারে। কিন্তু সেটা করবে না।'

আরেকজন বলেন, 'বিশ্বে ভালো ইমেজ তৈরি করে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্র। দেখাচ্ছে ত্রাণ দিচ্ছে। অথচ ত্রাণ আসছে আরব দেশগুলো থেকে।'

এমন পরিস্থিতিতে মার্কিন সিনেটে ভিডিওকলে যুক্ত হবেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। ইসরাইলের এই বেপরোয়া পরিস্থিতিতে দেশটিকে সামরিক সহায়তা দেয়া স্থগিত করেছে কানাডা। এই স্থল অভিযানে এখন পর্যন্ত গাজায় প্রাণ হারিয়েছে ৩১ হাজারের বেশি মানুষ। বাস্তুচ্যুত হয়েছে উপত্যকার অর্ধেকের বেশি মানুষ।

ইএ