ফিচার স্টোরি
জীবনযাপন
৩৬ ঘণ্টা না খেয়ে থাকেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী
শরীর সুস্থ রাখতে নিয়মিত ব্যায়ামের পাশাপাশি অনেকেই করেন ডায়েট। খেলোয়াড় থেকে অভিনেতা, হলিউড থেকে বলিউড। সবাই মেনে চলেন নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম। শুনতে অবাক লাগলেও সত্যি, নিজকে ফিট রাখতে প্রতি সপ্তাহে একটানা ৩৬ ঘণ্টা খাবার খান না ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক।

শারীরিক কিংবা মানসিক বিশেষ সক্ষমতা অর্জনের আশায় কিছুই না খেয়ে, না ঘুমিয়ে গভীর ধ্যানে চালিয়ে যান সাধনা। প্রাচীন পুরাণের নানা উপাখ্যানে এমন মুনিঋষিদের দেখা মেলে হরহামেশাই। তবে এবার বাস্তবেই ধরা দিলেন এমনই এক ঋষি। তিনি ভারতীয় বংশোদ্ভূত যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক। না খেয়েই দিব্যি দেশ চালাচ্ছেন ৪৩ বছর বয়সী এই প্রধানমন্ত্রী। শরীর ও মন সুস্থ রাখতে ব্যতিক্রমী এক খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলেছেন তিনি।

ব্রিটিশ জাতীয় সংবাদপত্র সানডে টাইমসকে প্রধানমন্ত্রীর হাঁড়ির খবর জানিয়েছেন তারই ঘনিষ্ঠজন। জানান, নিয়মিত ব্যায়াম করার সুযোগ না থাকায় ঋষি সুনাক নিজেই তৈরি করেছেন খাদ্যাভ্যাস। রুটিন অনুযায়ী সপ্তাহে প্রতি রোববার বিকেল পাঁচটা থেকে মঙ্গলবার ভোর পাঁচটা পর্যন্ত উপবাস থাকেন তিনি। পুরো সময়জুড়ে খান না কোনো খাবার। শরীর হাইড্রেটেড রাখতে পানি, গ্রিন টি ও ঘুম তাড়াতে পান করেন শুধু ব্ল্যাক কফি।

তবে মিষ্টিজাতীয় খাবারের প্রতি দুর্বলতা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের। সপ্তাহের বাকি দিনগুলোতে চিনিযুক্ত খাবার খান তিনি। যদিও এর আগে সংবাদমাধ্যম বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে, নিজের ফিটনেসের রহস্য জানিয়েছিলেন ঋষি। বলেন, 'ভারসাম্যপূর্ণ জীবনধারার অংশ হিসেবে এটা আমার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আমি প্রতি সপ্তাহের শুরুতে উপবাস করার চেষ্টা করি। যদিও প্রত্যেকে এটি আলাদাভাবে করে। আমি চিনিযুক্ত খাবার খুব পছন্দ করি।'

এদিকে ঋষি সুনাকের এই ডায়েটকে কার্যকর বলছেন যুক্তরাজ্যের পুষ্টিবিজ্ঞানীরা। জানান, বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় ও স্বাস্থ্যকর ডায়েট '৫:২'। মানসিক স্ট্রেস প্রতিরোধ, শরীরের চর্বি কমানো, এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এই ডায়েট। তবে রয়েছে কিছু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও, ক্লান্তিভাবসহ শরীরের পেশী দুর্বলতা দেখা দিতে পারে এই ডায়েটে।

এমএসআরএস