এশিয়া
বিদেশে এখন
যুক্তরাষ্ট্রকে কড়া ভাষায় প্রতিবাদ ভারতের
দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়ালের গ্রেপ্তার নিয়ে জার্মানির পর এবার যুক্তরাষ্ট্রও সংশয় প্রকাশ করেছে। তবে, অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে কড়া ভাষায় প্রতিবাদ জানিয়েছে ভারত। এদিকে রিমান্ড শেষে ২৮ মার্চ আদালতে হাজির করা হবে কেজরিওয়ালকে। আদালতে তিনি সব বিষয় খোলাসা করবেন। এক ভিডিও বার্তায় এমন দাবি করেন তার স্ত্রী।

যুক্তরাষ্ট্র বলছে, কেজরিওয়ালের গ্রেপ্তারের ঘটনায় নজর রাখছে তারা। তবে তার সুষ্ঠু বিচার পাওয়া নিয়ে সংশয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। আম আদমি পার্টির শীর্ষ এ নেতার বিচারকাজ স্বচ্ছ ও দ্রুততার সঙ্গে শেষ করার আহ্বানও দেশটির। এর আগে ভারতে জার্মানির এক শীর্ষ কূটনীতিকও কেজরিওয়ালের সুষ্ঠু বিচার পাওয়া নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে। আর এতেই দেশ দুটির উপর চটেছে দিল্লি।

বুধবার (২৭ মার্চ) দিল্লিতে শীর্ষ মার্কিন কূটনীতিক গ্লোরিয়া বারবেনাকে তলব করে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। প্রায় ৪০ মিনিট তাকে রীতিমতো জেরা করেন পররাষ্ট্র দপ্তরের কর্তারা। পরে দিল্লির এক বিবৃতিতে বলা হয়, অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মন্তব্য বন্ধুত্বপূর্ণ দেশের মধ্যে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ তৈরি করে। এর আগে একইভাবে দিল্লিতে জার্মান দূতাবাসের শীর্ষ এক কূটনীতিককে তলব করে নিন্দা জানায় দিল্লি।

গত বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়ালকে মদ সংক্রান্ত আবগারি কেলেঙ্কারিতে গ্রেপ্তার করে দেশটির কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। এরপর থেকে ইডির হেফাজতে আছেন কেজরিওয়াল।

এদিকে এক ভিডিও বার্তায় তার স্ত্রী সুনীতা কেজরিওয়াল দাবি করেন, বৃহস্পতিবার আদালতে তথ্য-প্রমাণসহ সব খোলাসা করবেন কেজরিওয়াল নিজেই। বলেন, 'ইডি আমাদের বাড়িতে রেড দিয়ে নগদ মাত্র ৭৩ হাজার রুপি পেয়েছে। অরবিন্দ কেজরিওয়াল যদি মদের আবগারিতে দুর্নীতি করে টাকা আয় করে, তাহলে সে অর্থ কোথায় গেল? আদালতে সবকিছু প্রকাশ্যে আনবেন কেজরিওয়াল। গোটা দেশ সাক্ষী থাকবে।'

গ্রেপ্তার হলেও মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে এখনও ইস্তফা দেননি অরবিন্দ কেজরিওয়াল, জেলে থেকেই চালাচ্ছেন কাজকর্ম। তবে কেন্দ্রীয় তথ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রীর আসনে স্ত্রী সুনীতাকে বসানোর চক্রান্ত করছেন তিনি। ১৯৯৭ সালে পশুখাদ্য কেলেঙ্কারির মামলায় আটক হওয়ার আগে স্ত্রী রাবড়ি দেবীকে বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর আসনে বসিয়ে যান লালুপ্রসাদ যাদব। এখন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর পদ নিয়েও একই গুঞ্জন শুরু হলো।

এভিএস