বিশ্ব অর্থনীতি
অর্থনীতি
এবার অনির্দিষ্টকালের জন্য পেঁয়াজ রপ্তানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞা
ভারতের লোকসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এবার অনির্দিষ্টকালের জন্য পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে দেশটির সরকার।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ইকোনমিক টাইমনের প্রতিবেদন অনুযায়ী, আজ (শনিবার, ২৩ মার্চ) দেশটির ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেইন ট্রেড (ডিজিএফটি) এক আদেশ জারির মাধ্যমে জানায়, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ থাকবে।

দ্য ইকোনমিক টাইমসের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, ভারত চলতি অর্থবছরে ২০২৩ সালের এপ্রিল থেকে জানুয়ারি পর্যন্ত ৪৩১.৭৮ মিলিয়ন ডলারের পেঁয়াজ রপ্তানি করেছে। যার মধ্যে বাংলাদেশে ১৮৭.৫ মিলিয়ন ডলার পেঁয়াজ বাংলাদেশে রপ্তানি করেছে ভারত।

দেশের বাজার স্থিতিশীল করতে গেল ডিসেম্বরে পেঁয়াজ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দেয় ভারতের সরকার। যার মেয়াদ ছিল ৩১ মার্চ পর্যন্ত।

নতুন মৌসুম শুরুর পর দেশের বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ বাড়ার পাশাপাশি স্থিতিশীল হয়েছে দাম। গেল ডিসেম্বরেও সর্বোচ্চ পেঁয়াজ উৎপাদনকারী প্রদেশ মহারাষ্ট্রের পাইকারি বাজারে ১০০ কেজি পেঁয়াজের দর ছিল সাড়ে ৪ হাজার রুপি। বর্তমানে যা ১ হাজার ২০০ রুপি।

বাংলাদেশ, মালয়েশিয়া, নেপাল আর সংযুক্ত আরব আমিরাত ভারতের পেঁয়াজের ওপর অনেকাংশে নির্ভরশীল। এই নিষেধাজ্ঞার কারণে বাজারমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে বিপাকে পড়েছে আমদানিকারক সব দেশ।

বাধ্য হয়ে বেশি দামে অন্য দেশ থেকে কিনতে হচ্ছে পেঁয়াজ। ব্যবসায়ীরা বলছেন, প্রতিদ্বন্দ্বী চীন আর মিশরের তুলনায় ভারতের পেঁয়াজের শিপমেন্টে সময় কম লাগে।

এশিয়ার দেশগুলো মোট প্রয়োজনের অর্ধেকের বেশি পেঁয়াজ ভারত থেকে আমদানি করে। ২০২৩ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত এক অর্থবছরে ভারত রেকর্ড ২৫ লাখ মেট্রিক টন পেঁয়াজ রপ্তানি করেছে।

এমএসআরএস