ইউরোপ
বিদেশে এখন
'জব্দ করা রুশ সম্পদের মুনাফা যাবে ইউক্রেনে'
রাশিয়ার জব্দ করা সম্পদ থেকে আসা মুনাফা থেকে বছরে ইউক্রেনের জন্য ২০০ কোটি ডলারের বেশি সামরিক সহায়তা দেয়ার পরিকল্পনা করছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। রুশ তহবিল থেকে প্রাপ্ত কর ব্যবহার করা হবে ইউক্রেন পুনর্গঠনে। পাশাপাশি ব্যয় হবে সমরাস্ত্রে। জব্দ অবস্থায় পড়ে আছে রাশিয়ার ২৮ হাজার কোটি ডলারের বেশি সম্পদ।

রাশিয়ার সেনা অভিযানের প্রথম বছরে ইউক্রেনকে নিরবচ্ছিন্ন সামরিক সহায়তা দিয়ে এখন বিপাকে পড়েছে পশ্চিমারা। দ্বিতীয় বছরের শেষে এসে সবচেয়ে বড় সামরিক সহায়তা প্রদানকারী দেশ যুক্তরাষ্ট্র পড়ে গেছে নানা সংকটে। ভাটা পড়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সমরাস্ত্র সরবরাহেও। এই অবস্থায় যুদ্ধক্ষেত্রে বিপাকে পড়ছে ইউক্রেন।

দেশটিকে সহায়তা দিতে এবার নতুন পথ বেছে নিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। কথা ছিল রাশিয়ার জব্দ করা ২৮ হাজার কোটি ডলার থেকে পাওয়া কর দিয়ে পুনর্গঠন করা হবে ইউক্রেন।

ইইউ'র পরিকল্পনা, কর রাজস্বের ২৭০ থেকে ৩৩০ কোটি ডলার ব্যয় করা হবে ইউক্রেনে সামরিক সহায়তা দেয়ার কাজে। ইইউ বলছে, ইউক্রেনের এখন সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন সমরাস্ত্র। যদিও অর্থের পরিমাণ নির্ভর করছে সুদের হারের ওপর।

যদিও এই খবরে হতাশা প্রকাশ করছে জি সেভেন আর ইউক্রেন। কারণ বাজেয়াপ্ত হওয়া রুশ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সম্পদ থেকে যাচ্ছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে। জব্দ হওয়া অর্থ থেকে পাওয়া মুনাফাই শুধু কাজে লাগবে ইউক্রেনের। যদিও মস্কো আদালতে চ্যালেঞ্জ করলে ভেস্তে যেতে পারে ইইউ'র পরিকল্পনা।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সব সদস্য দেশের অনুমোদন পেলে চলতি বছর কর থেকে পাওয়া অর্থের ৯০ শতাংশ ব্যয় হবে ইউক্রেনে সামরিক সহায়তা দিতে। গেলো মাসে ইউরোপের আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্দেশনা দেয়া হয়। রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংক তহবিল থেকে আসা অর্থ যেন শেয়ারহোল্ডারদের না দেয়া হয়। ইউরোপীয়ন কমিশন জানায়, ইউক্রেন আর ইউরোপের নিরাপত্তার জন্যই এই অর্থ সামরিক খাতে ব্যয় হবে।

রাশিয়ার ব্যাংকের বাজেয়াপ্ত সম্পদের দুই তৃতীয়াংশই ইউরোপীয় ইউনিয়নে আছে। নিষেধাজ্ঞা দেয়া আছে ১ হাজার ৭০০ নাগরিকের ওপর। যুক্তরাষ্ট্রে আছে ৪ থেকে ৬ হাজার কোটি ডলার, আর ব্রিটেনে আছে ৩ হাজার ৩০০ কোটি ডলার।

জার্মানি বলছে, রাশিয়ার জব্দ করা অলস সম্পদ থেকে মোটা অঙ্কের অর্থ আসছে। যা এখন ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা খাতে ব্যয় হবে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭ টি দেশের বিভিন্ন ব্যাংকে জব্দ আছে রাশিয়ার সম্পদ। ইউরোপীয় ইউনিয়ন আর জি সেভেনভুক্ত দেশ মিলে রাশিয়ার বাজেয়াপ্ত অর্থের পরিমাণ প্রায় ২৮ হাজার ২১০ কোটি ডলার।

এমএসআরএস