পরিবেশ ও জলবায়ু
দেশে এখন
‘বাংলাদেশের উন্নয়ন কার্যক্রমে পরিবেশ সংরক্ষণকে অগ্রাধিকার দেয়া হয়’
বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছেন, ‘বাংলাদেশের সকল উন্নয়ন কার্যক্রমে পরিবেশ সংরক্ষণকে অগ্রাধিকার দেয়া হয়। টেকসই কৃষি ব্যবস্থা ও নবায়নযোগ্য জ্বালানির অগ্রগতিতে তাই লক্ষণীয়। এছাড়া সোলার সেচ পাম্প শুধু কার্বন নিঃসরণই কমাবে না, একইসঙ্গে ভূগর্ভস্থ জলসম্পদ সংরক্ষণ করে পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখবে।’

বুধবার (২০ মার্চ) জার্মানির বার্লিনে এক প্যানেল ডিসকাশনে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ২০৩১ সালের মধ্যে ৪৫ হাজার সোলার সেচ পাম্প স্থাপনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এর মাধ্যমে দেশের ১৩ লক্ষ কৃষক সুবিধা পাবে বলে আশা করছি। সেই সঙ্গে ডিজেল ব্যবহার উল্লেখযোগ্য হারে হ্রাস পাবে এবং জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুপ প্রতিক্রিয়া কমে আসবে।

প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ আরও বলেন, একইসঙ্গে ভূগর্ভস্থ পানির অতিরিক্ত উত্তোলন প্রশমিত করতে নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহার ও বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। আন্তর্জাতিক সহযোগিতার মাধ্যমে উদ্ভাবন, আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার, আর্থিক যোগান ও অভিজ্ঞতার বিনিময় টেকসই উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে। জার্মানিসহ উন্নত দেশসমূহকে প্রযুক্তি হস্তান্তরে অগ্রণী ভূমিকা পালন করা উচিত।

এসময় বার্লিন এনার্জি ট্রানজিশন ডায়ালগ-২০২৪ এ অংশগ্রহণকারী দেশের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

এওয়াইএইচ