দেশে এখন
গোপালগঞ্জে বাস-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৫
গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরে বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও দশজন। নিহতদের মধ্যে একই পরিবারের ৩ জন ছিলেন।

পারিবারিক ইফতার মাহফিলে যোগ দিতে ঢাকা থেকে তারা গ্রামের বাড়ি শরীয়তপুর জেলার ডাসরা উপজেলার গোপালপুরে যাচ্ছিলেন। তারা সবাই ঢাকায় বসবাস করেন।

নিহতরা হলেন কমল বেগম (৭৮) ও তার তিন ননদ কাজী সালমা (৬২), কাজী আসমা (৫৮) ও কাজী নাছিমা (৭০)। অপর নিহত মাইক্রোবাসের চালকের পরিচয় এখনও শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ।

নিহত কমল বেগমের স্বামী কাজী হুমায়ূন কবির, বোন নাজমা বেগম ও ভাই তাছলিমকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সকালে ঢাকার মিরপুর থেকে মাইক্রোবাসে করে গ্রামের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন তারা।

বুধবার (২০ মার্চ) বেলা ১১টার দিকে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে ছাগলছিড়া এলাকায় এ সড়ক দূর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, গ্লোবাল পরিবহনের একটি বাস ‍যাত্রী নিয়ে বরিশাল থেকে ঢাকা যাচ্ছিল। পথে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে ছাগলছিড়া এলাকায় বিপরীতমুখী একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে ওই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিন মাইক্রোবাস যাত্রী মারা যায়। পরে আরও দুই জন মারা যায়।

নিহতদের মরদেহ উদ্ধার করে ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে হাইওয়ে থানা পুলিশ।

নিহতের ভাতিজি কাজী নাছরিন জানান, সবাই ঢাকাতেই থাকেন। গ্রামের বাড়িতে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই ইফতারে যোগ দিতেই ঢাকা থেকে তারা গ্রামের বাড়ি গোপালপুরের উদ্দেশ্যে আসছিলেন।

তিনি জানান, চাচা-চাচী ও চার ফুফুসহ পরিবারের সদস্যরা গাড়িতে ছিলেন। দূর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই চাচি ও তিন ফুফু মারা যান।

ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. তরুণ কুমার পাল জানান, মৃত অবস্থায় ৪ জন নারী ও একজন পুরুষের মরদেহ হাসপাতালে আনা হয়। হাসপাতাল থেকে মরদেহ থানায় নেয়া হয়েছে।

এমএসআরএস