প্রবাস
বিদেশে এখন
অবৈধ অভিবাসী ঠেকাতে কঠোর মালয়েশিয়া
বৈধ-অবৈধ মিলিয়ে মালয়েশিয়ায় বাস করা অভিবাসী শ্রমিকের সংখ্যা প্রায় ১৫ লাখ।

এ অবস্থায় চলতি বছরের ২৭ জানুয়ারি অবৈধদের বৈধ হওয়ার সুযোগ করে দেয় দেশটির সরকার। সেই সুযোগ শেষ হচ্ছে ৩১ ডিসেম্বর। তবে বিদেশিদের মধ্যে অপরাধ প্রবণতা বেড়ে যাওয়ায় কঠোর অবস্থানে মালয়েশিয়া সরকার। এরইমধ্যে অবৈধ অভিবাসী শ্রমিক ও অপরাধের সাথে জড়িতদের ধরতে বেশ কয়েকবার চালানো হয়েছে অভিযান।

অবৈধ অভিবাসীদের ধরতে এবার বড় ধরনের অভিযান চালানোর ঘোষণা দিয়েছে মালয়েশিয়া পুলিশ। হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে দেশটির ১০টির বেশি অভিবাসী অধ্যুষিত এলাকা। এর মধ্যে রয়েছে কুয়ালালামপুর, সেলাংগর, জহুর, কেদাহ ও কেলান্তান। এসব অঞ্চলে থাকা বিভিন্ন বিদেশি প্রতিষ্ঠান ও নথিভুক্ত নয়, এমন অভিবাসীদের বাসস্থান লক্ষ্যবস্তু করে শিগগিরই অভিযান চালানোর হুঁশিয়ারি দিয়েছে পুলিশ।

মালয়েশিয়া পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক আইয়ব খান মাইদিন পিচাই বলেন, আমরা সময়ে সময়ে অভিযান চালাবো। একই সাথে জনসাধারণকেও বুঝতে হবে যে আমরা মাঝে মাঝে ইমিগ্রেশন ডিপোতে আটক ব্যক্তিদের রাখার ক্ষেত্রেও অসুবিধার সম্মুখীন হই।

এ অবস্থায় দেশটিতে থাকা বাংলাদেশি প্রবাসীদের স্বস্তি নিশ্চিতে সর্বোচ্চ চেষ্টার আশ্বাস হাইকমিশনারের।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. শামীম আহসান বলেন, ‘প্রবাসীরা যেন স্বস্তির মধ্যে কাজ করতে পারেন সে লক্ষ্যে আমরা সর্বোচ্চটা করছি।’

নানা অপরাধে ২০২৩ সালের নভেম্বর পর্যন্ত আটক হয়েছে ২ হাজার ৩৬৬ বিদেশিকে। যা গতবছরের চেয়ে প্রায় ২০ শতাংশ বেশি। আটকদের মধ্যে ইন্দোনেশিয়া, মিয়ানমার, ফিলিপিন্স, ভারত ও বাংলাদেশের নাগরিকও রয়েছে।

এমএসএ