বাজার

চট্টগ্রামে মুরগির দাম কমলেও গরুর মাংসের বাজার চড়া

কোরবানির ঈদের আগে চট্টগ্রামের বাজারে মুরগির চাহিদা কমেছে ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ। তবে চাহিদা কমায় মুরগির দাম কেজিপ্রতি ২০ থেকে ৫০ টাকা কমলেও আগের মতোই চড়া মূল্যে বিক্রি হচ্ছে গরুর মাংস।

গত রোজার ঈদে ব্রয়লারের দাম উঠেছিলো ২৬০ টাকা পর্যন্ত। এরপর দীর্ঘসময় ২০০ এর ঘরেই ছিল মুরগির বাজার। তবে কোরবানির ঈদের দুইসপ্তাহ আগে থেকে দুইশোর নিচে নেমেছে ব্রয়লারের দাম। কমেছে অন্যান্য মুরগির দরও।

শনিবার (৮ জুন) চট্টগ্রামের বাজারে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয় ১৮০ টাকায়। সপ্তাহ ব্যবধানে সোনালী মুরগির দামও কেজিতে ৩০ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ৩১০-৩২০ টাকায়। আর দেশি মুরগির কেজি ৫০ টাকা কমে বিক্রি হচ্ছে ৫৫০ টাকায়।

বিক্রেতারা বলেন, কুরবানির ঈদের আগে ও পরে নির্দিষ্ট সময় ৩০-৪০ শতাংশ কমে মুরগির চাহিদা। এছাড়া তীব্র গরমে হিট স্ট্রোকেও মুরগি মারা যাচ্ছে। তাই খামারিরা লোকসান এড়াতে কম দামে মুরগি সরবরাহ করছেন। দাম কমলেও সে অনুযায়ী বাড়েনি বিক্রি।

নিন্ম মধ্যবিত্ত ক্রেতারা মুরগির বাজারে গিয়ে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন। এক ক্রেতা বলেন, 'গত সপ্তাহের তুলনায় মুরগির দাম এখন আগের তুলনায় অনেক কম। এই জন্য আমরা সাধ্য অনুযায়ী মুরগি নিচ্ছি।'

এদিকে মুরগির পাশাপাশি চাহিদা কমেছে গরুর মাংসেরও। বাজারে প্রতিকেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৮০০ টাকায়।

এভিএস

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর