চুক্তি
অর্থনীতি

প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর দু’দিনের; সই হবে দ্বিপক্ষীয় চুক্তি-সমঝোতা স্মারক

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে আগামী ২১ থেকে ২২ জুন দু’দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে নয়াদিল্লিতে যাচ্ছেন। এই সফরে শীর্ষপর্যায়ের বৈঠকের পাশাপাশি বেশ কিছু চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে।

টানা তৃতীয়বারের মতো বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট সরকার গঠনের পর ভারতে কোনো সরকারপ্রধানের এটিই হতে যাচ্ছে প্রথম কোনো দ্বিপক্ষীয় সফর।

আজ (বুধবার, ১৯ জুন) প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইংয়ের পাঠানোর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, সফরকালে দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে শীর্ষপর্যায়ে একান্ত বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

এর পর প্রতিনিধি পর্যায়ের আলোচনাও হবে। সফরকালে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে বিদ্যমান দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরও জোরদার করতে বেশ কিছু চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে।

এছাড়া একটি সম্ভাব্য বাণিজ্য চুক্তির বিষয়েও আলোচনা হবে বলে আশা করা হচ্ছে। দু’দেশের মধ্যে আঞ্চলিক অংশীদারত্ব পরিকল্পনার অংশ হিসেবে বেশ কিছু আন্তঃসীমান্ত উদ্যোগ চালু করা হয়েছে।

এটি ১৫ দিনেরও কম সময়ে নয়াদিল্লিতে শেখ হাসিনার দ্বিতীয় সফর হতে যাচ্ছে। প্রসঙ্গত, গত ৯ জুন নরেন্দ্র মোদির শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে তিনি আমন্ত্রিত বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে জানানো হয়েছে, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার সফরসঙ্গীদের নিয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করবে।

ফ্লাইটটি বিকাল ৪টায় নয়াদিল্লির পালাম বিমানবন্দরে অবতরণ করবে। সন্ধ্যায় ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর প্রধানমন্ত্রীর সাথে তার বাসভবনে সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানাতে আগামী শনিবার সকালে রাষ্ট্রপতি ভবনে লালগালিচা বিছানো হবে। এ সময় তার ভারতীয় সমকক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে অভ্যর্থনা জানাবেন এবং দু’দেশের জাতীয় সঙ্গীত বাজানো হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গার্ড অব অনারও পরিদর্শন করবেন।

এরপর তিনি রাজঘাটে ভারতের জাতির পিতা মহাত্মা গান্ধীর সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানাবেন। সেখানে তিনি পরিদর্শন বইয়ে স্বাক্ষর করবেন। শেখ হাসিনা একই দিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে একান্ত বৈঠক এবং প্রতিনিধি পর্যায়ে আলোচনার জন্য হায়দরাবাদ হাউসে যাবেন।

উভয়েই সমঝোতা স্মারক ও চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান প্রত্যক্ষ করবেন। এরপর দুই প্রধানমন্ত্রী তাদের বিবৃতি দেবেন। তারা হায়দ্রাবাদ হাউসে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সম্মানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী আয়োজিত ভোজসভায় যোগ দেবেন।

বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সচিবালয়ে ভারতের উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখারের সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতি ভবনে ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

এদিন সন্ধ্যা ৬টায় (দিল্লির স্থানীয় সময়) প্রধানমন্ত্রী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে পালাম বিমানবন্দর থেকে ভারতের রাজধানী ত্যাগ করবেন। —বাসস

আসু

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর