পুঁজিবাজার
আতঙ্কিত না হওয়ার আহ্বান, বড় বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত সিইও ফোরামের
পুঁজিবাজার থেকে ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহার করে নিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এর প্রেক্ষিতে পুঁজিবাজারে বড় বিনিয়োগে যাচ্ছে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা।
ফ্লোর প্রাইস তোলার দিনেও বাজারের পতন
ফ্লোরপ্রাইস তোলার পর প্রথম কর্মদিবসের সকালে সূচকের বড় পতন হলেও দিনশেষে ফের কিছুটা ঘুরে দাঁড়ায়। প্রথম দিনে শেষ পর্যন্ত ডিএসই সূচক পড়েছে ৯৬.৫০ পয়েন্ট।
ফ্লোর প্রাইসের কারণে ৮০% ব্রোকারেজ তুলতে পারছে না পরিচালন ব্যয়
ফ্লোর প্রাইসের কারণে গত দেড় বছরে দেশের শেয়ারবাজারে লেনদেন ব্যাপক হারে কমে গেছে। এতে প্রায় ৮০ শতাংশ ব্রোকারেজ হাউজ তাদের পরিচালন ব্যয় তুলতে পারছে না।
উঠে গেল ফ্লোর প্রাইস, তবে থাকছে ৩৫টি কোম্পানির
অবশেষে নানা আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে ফ্লোর প্রাইস (সর্বনিম্ন সীমা) তুলে নিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।
ফ্লোর প্রাইস তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত বিএসইসি'র
ফ্লোর প্রাইসের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীরা