দেশে এখন
ঈদে উপলক্ষে রাজধানী ছাড়তে শুরু করেছে ঘরমুখো মানুষ
ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে রাজধানী ছাড়তে শুরু করেছে ঘরমুখো মানুষ। আজ (বুধবার, ৩ এপ্রিল) রাজধানীর কমলাপুর স্টেশনে শুরু হয়েছে আগাম টিকিট কাটা লোকজনের ট্রেনযোগে বাড়ি ফেরা। স্টেশনের পরিবেশ ও শিডিউল বিপর্যয় না থাকায় আনন্দিত যাত্রীরা।

নগরের চিরচেনা ব্যস্ততা আর আটকে রাখছে না নগরবাসীকে। সব ফেলে শিকড়ের টানে ঘরে ফিরছেন নগরবাসী। সকাল থেকে একযোগে কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে বাড়ি ফেরা শুরু করেছে মানুষ।

যাত্রীরা বলছেন, নিরাপত্তাসহ প্ল্যাটফর্মের ভিতরের পরিবেশ ভালো। এভাবে স্বস্তি নিয়ে বাড়ি ফেরায় যাত্রীদের মাঝে কাজ করছে বাড়তি আনন্দ।

একজন যাত্রী বলেন, 'অন্য বছরের তুলনায় এবার স্টেশনের পরিবেশ ভালো আছে। বাড়িতে যাচ্ছি খুব ভালো লাগছে।'

এদিকে এবার ট্রেনের শতভাগ টিকিট দেয়া হয়েছে অনলাইনে। তবে যাত্রীরা স্ট্যান্ডিং টিকেট কাটতে পারছেন ২৫ শতাংশ। এদিকে কমলাপুর স্টেশনে জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা, টিকিট ছাড়া প্লাটফর্মে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না কাউকে। এতে স্টেশনে থাকছে না আগের মতো ভিড়। তবে কয়েকটি ট্রেন নির্ধারিত সময়ের পরে ছেড়েছে।

ঈদযাত্রার প্রথম চার দিন রাজধানী ছেড়ে যাবে ৪২টি আন্তঃনগর ট্রেন। আর যাত্রার শেষ তিন দিনে যুক্ত হবে আরও ৬টি ট্রেন, এতে শেষ তিন দিনে রাজধানী ছেড়ে যাবে ৪৮টি করে ট্রেন। সাত দিনে ৩৩ হাজার ৫০০ আসনের বিপরীতে বিক্রি হয়েছে ট্রেনের টিকিট।

এদিকে কমলাপুরের স্টেশন ম্যানেজার মোহাম্মদ মাসুদ সারওয়ার বলছেন, যাত্রীদের নিরাপদ যাত্রাতে তৎপর আছে রেল কর্তৃপক্ষ। প্রথম দিনে কয়েকটি ট্রেন বিলম্বিত হলেও শিডিউল বিপর্যয় না বলে জানিয়েছেন তিনি।

এছাড়াও মাসুদ সারওয়ার জানিয়েছেন, ট্রেনে তৃতীয় লিঙ্গ ও ভিক্ষুকের উৎপাত বন্ধে ব্যবস্থা নেবে রেল কর্তৃপক্ষ।

একইদিনে দেয়া শুরু হয়েছে ঈদের পর ফিরতি আগাম টিকিট। যা বিক্রি চলবে ৯ এপ্রিল পর্যন্ত, শেষ দিনে দেয়া হবে ১৯ এপ্রিলের ফিরতি টিকিট।

এমএসআরএস