দেশে এখন
কারওয়ানবাজার থেকে সরলো ডিএনসিসির অফিস
ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) আঞ্চলিক কার্যালয় স্থানান্তরের মাধ্যমে শুরু হলো রাজধানীর কারওয়ান বাজার সরানোর প্রক্রিয়া। ঈদের পরে কারওয়ান বাজার ছেড়ে গাবতলী সিটি কর্পোরেশন মার্কেটে যাবেন ব্যবসায়ীরা। আগে বহুবার বৈঠক, নির্দেশনা, সিদ্ধান্ত এলেও এবার কার্যকর হচ্ছে বাজার স্থানান্তর। এই পদক্ষেপকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন নগরবাসী।

কারওয়ান বাজার, রাজধানী ঢাকার সবচেয়ে বড় পাইকারি আড়ত। প্রতিদিন হাজারো মানুষের আনাগোনা আর পণ্য কেনাবেচায় মুখরিত থাকে দিনরাত। কালের বিবর্তনে এই বাজার এখন রাজধানীর বুকে নানা ঝঞ্ঝাটের কারণ। শহরের প্রাণকেন্দ্রে থাকা এই বাজার ঘিরে প্রতিনিয়ত সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। এছাড়া সিটি কর্পোরেশনের ভবনটিও ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছে।

কৃষিপণ্যের বাজার ও সরবরাহ ব্যবস্থা উন্নয়নের পাশাপাশি কারওয়ান বাজারের যানজট কমাতে ২০০৬ সালে ‘ঢাকা শহরের তিনটি পাইকারি কাঁচাবাজার নির্মাণ প্রকল্প’ পাস হয় একনেকে। ২০৬ কোটি ৪৬ লাখ টাকা ব্যয়ে ২০১০ সালের জুনের মধ্যে নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও সময়মতো কাজ হয়নি। এর মধ্যে কারওয়ান বাজার ছাড়তে নারাজ ছিলেন ব্যবসায়ীরা। সবমিলিয়ে পিছিয়ে যাচ্ছিলো বাজার সরানোর কাজ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকেও পাইকারি এই বাজার সরানোর নির্দেশনা এসেছিল। এরপর সংশ্লিষ্টদের নিয়ে কয়েক ধাপে বৈঠক হলেও বাজার স্থানান্তরের কিনারা হয়নি। শেষমেষ, গেল ১৮ মার্চ কারওয়ান বাজার স্থানান্তরের বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম ও ব্যবসায়ীরা বৈঠকে বসেন। বৈঠক শেষে মেয়র আতিক জানান, ঈদের পর রাজধানীর কারওয়ান বাজারের ১৭৬টি পাইকারি দোকান গাবতলীতে সরিয়ে নেওয়া হবে।

বাজার সরানোর অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার (২৮ মার্চ) সকালে বাজারের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে থাকা উত্তর সিটির অঞ্চল-৫ এর আঞ্চলিক কার্যালয় স্থানান্তরের কাজ শুরু হয়। এর মাধ্যমে অবশেষে ঐতিহ্যবাহী এই বাজার স্থানান্তর শুরু হলো ।

ডিএনসিসি অঞ্চল-৫ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাকাব্বির আহমেদ বলেন, ‘যেহেতু এটি ঝুঁকিপূর্ণ ভবন ছিলো। এর নিচে আড়ৎ আছে, ভবনটি ভেঙে ফেলাও হবে। সবমিলিয়ে কারওয়ান বাজার সরিয়ে নেয়ার লক্ষ্যেই আমরা অফিস সরিয়ে নিয়েছি।’

এদিকে বাজার উঠে গেলে কিছুটা অসুবিধা হলেও যানজটের কবল থেকে মুক্তি মিলবে নগরবাসীর। তবে একত্রিতভাবে বাজার সরানোর দাবি ব্যবসায়ীদের।

প্রথম ধাপে পাইকারি কাঁচামালের আড়ৎ সরানো হবে। পর্যায়ক্রমে কারওয়ান বাজারের সব মার্কেট সরানো হবে বলেও জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এওয়াইএইচ