ফিচার স্টোরি
জীবনযাপন
পুরনো শাড়ি থেকে সহজে বানিয়ে ফেলুন পছন্দের পোশাক
নতুন পোশাক ছাড়া ঈদ যেন অপূর্ণ। এরই মাঝে অনেকেই হয়তো ঈদের পোশাক কেনার সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন। অনলাইনসহ শহরের বিভিন্ন বিপণী বিতানগুলোয় চলছে ঈদের বিকিকিনি। শুধু নিজের জন্য নয়, পরিবারের সবার জন্য ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে নতুন পোশাকের জুড়ি নেই। তবে বিশ্বব্যাপী যে অর্থনৈতিক মন্দা তার প্রভাব পড়েছে পকেটেও। তাই খরচ বাঁচাতে কিছু বিষয় অনুসরণ করতে পারেন।

সবার বাড়িতে পুরনো কিছু শাড়ি পড়ে থাকে। নানা কারণে পরা হয় না এসব শাড়ি।  চাইলেই পড়ে থাকা এসব পুরনো শাড়ি দিয়ে অনেক নতুন নতুন স্টাইলের ড্রেস বানিয়ে নিতে পারেন। এজন্য দরকার একটু সৃজনশীলতা আর একটু বুদ্ধি খরচ। তাহলেই বাজেটের মধ্যে ফ্যাশন মেকওভার করতে পারেন। কীভাবে? আসুন, জেনে নেওয়া যাক…

 ১. কাফতান

ফ্যাশন জগতে আবারও প্রবেশ করেছে কাফতান ড্রেস। নতুন কাফতান ড্রেস না কিনে আপনি পুরোনো শাড়ি দিয়েই তৈরি করে নিতে পারেন এই পোশাকটি। এতে করে আপনার কাপড় কেনার শাড়ি যদি শিফন কিংবা জর্জেট হয়, তাহলে খুব সুন্দর কাফতান তৈরি করা যাবে। আপনার বাজেটের মধ্যেই ফ্যাশনে নতুন মাত্রা যোগ করবে এ পোশাকটি। 

২. গাউন

গত কয়েক বছর ধরে হাল-ফ্যাশনে নতুন সংয়োজন ওয়ান-পিস গাউন। ফ্যাশন ট্রেন্ডেও থাকা একরঙা গাউন হোক কিংবা প্রিন্টেড অথবা প্যাচওয়ার্ক করা, পুরনো শাড়ি দিয়ে কিন্তু দিব্যি একটা ওয়ান-পিস গাউন তৈরি করে নিতে পারেন। এবং সেটা কম খরচে। কারণ গাউন তৈরিতে প্রায় অর্ধেক শাড়ির সমপরিমাণ কাপড়ের প্রয়োজন পড়ে।

৩. ফিউশন স্কার্ট

ফিউশন স্কার্ট বর্তমানে মেয়েদের পোশাকের আরেকটি ট্রেন্ড। দেখতেও খুব ভাল লাগে। পুরনো শাড়ি কেটে যদি স্কার্ট বানাতে চান তাহলে চেষ্টা করুন প্রিন্টেড শাড়ি দিয়ে তৈরি করার। কারণ প্রিন্টেড স্কার্ট আজকাল খুব চলছে। ক্রপ টপ কিংবা আপনার পছন্দ মতো কোনো টপের সঙ্গে আপনার শাড়ি কাটা স্কার্টটিও কিন্তু দারুন মানাবে।

৪. টুইনিং ড্রেস

মা, বোন কিংবা মেয়ে শিশুর সঙ্গে মিলিয়ে একইরকম পোশাকের ট্রেন্ডও বেশ চলছে। বিষয়টা দেখতেও দারুণ কিউট। সন্তানের সঙ্গে মিলিয়ে যদি এরকম টুইনিং ড্রেস পরতে চান, তাহলে পুরনো শাড়ি কেটে দু’জনের জন্য একরকমের ড্রেস বানিয়ে নিন। কম খরচে অনায়াসেই দু’জনের দুটো ড্রেস হয়ে যাবে।

৫. আনারকলি

পোশাকটির নামের সঙ্গেই জড়িয়ে আছে মুঘল সাম্রাজ্যের ইতিহাস, ঐতিহ্য আর ভালোবাসার গল্প। নারীর সৌন্দর্য ও আভিজাত্যের প্রতীক এই আনারকলি। এক রঙের শাড়ি আর তাতে পাড় বসানো থাকলে তা থেকে বানিয়ে নিন আনারকলি ড্রেস। যেহেতু আনারকলিতে অনেক কুচি হয় এবং এর ঝুলনও বেশি হয়, তাই বানাতেও অনেক কাপড় লাগে। আর সেই কাপড়টা আপনি আপনার পুরনো শাড়ি থেকে খুব সহজেই পেয়ে যাবেন।

কেফা