পুঁজিবাজার
অর্থনীতি
‘জেড’ ক্যাটাগরিতে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ২২ কোম্পানি
পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ২২ কোম্পানির শেয়ার আজ রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) থেকে ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন শুরু করেছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এজিএম করতে ব্যর্থ, ৬ মাসের বেশি সময় উৎপাদন বন্ধসহ বেশকিছু কারণে এসব কোম্পানির শেয়ার ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

বিএসইসি সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

তথ্য মতে, যে ২২ কোম্পানির শেয়ার ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে গেল তার মধ্যে বস্ত্র খাতের ৭টি, সিমেন্ট খাতের ১টি, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের ১টি, আর্থিক খাতের ৫টি, আইটি খাতের ১টি, প্রকৌশল খাতের ৩টি, ওষুধ ও রসায়ন খাতের ১টি, কাগজ খাতের ১টি, খাদ্য খাতের ১টি এবং সিরামিক খাতের ১টি কোম্পানি রয়েছে।

কোম্পানিগুলো হচ্ছে, অলটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ, আরামিট সিমেন্টস, আজিজ পাইপস, ডেল্টা স্পিনিং, এফএএস ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, জিবিবি পাওয়ার লিমিটেড, ইনটেক লিমিটেড, ইন্টারন্যাশনল লিজিং, কেয়া কসমেটিকস, খুলনা প্রিন্টিং, ন্যাশনাল টি, প্রিমিয়ার লিজিং, রিজেন্ট টেক্সটাইল, রেনউইক যজ্ঞেশ্বর অ্যান্ড কোম্পানি লিমিটেড, রিং শাইন টেক্সটাইল, সাফকো স্পিনিং, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক, ঢাকা ডাইং, ইউনিয়ন ক্যাপিটাল, উত্তরা ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড, ইয়াকিন পলিমার এবং জাহিন টেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড।

এর আগে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি তালিকাভুক্ত কোম্পানিকে জেড ক্যাটাগরিতে পরিবর্তন বা স্থানান্তরের বিষয়ে এক নির্দেশনা দেয় বিএসইসি। নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী, কোন কোম্পানি লভ্যাংশ প্রদান ও এজিএম করতে ব্যর্থ হলে তাকে জেড ক্যাটাগরিতে স্থানান্তর করা হবে। এ নির্দেশনা ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকেই কার্যকর হবে বলে জানানো হয়।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত ১৫ ফেব্রুয়ারি জারি করা নির্দেশনায় পরবর্তী লভ্যাংশ ঘোষণার পর কোম্পানিকে জেড ক্যাটাগরিতে স্থানান্তরের কথা বলা হয়েছে। তবে আলোচিত ২২ কোম্পানি গত কয়েক বছর ধরেই লভ্যাংশ দেয়নি। এছাড়া গত কয়েক বছরে এজিএম না করা, ব্যবসায় ধারাবাহিক লোকসান ও উৎপাদন বন্ধ এবং দায় বাড়তে থাকায় সম্পদ কমে যাওয়াসহ বেশকিছু কারণে তাদেরকে সবশেষ নির্দেশনা অনুসরণ করে জেড ক্যাটাগরিতে স্থানান্তর করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

এর আগে নির্দেশনায় বলা হয়, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোন কোম্পানি পরপর দুই বছর লভ্যাংশ ঘোষণায় ব্যর্থ হলে তাকে জেড ক্যাটাগরিতে স্থানান্তর করা হবে। একইসাথে কোন আইনি কারণ ছাড়া টানা দুই বছর বার্ষিক সাধারণ সভা বা এজিএম করতে ব্যর্থ হলেও কোম্পানির ক্যাটাগরি পরিবর্তন করে জেড ক্যাটাগরিতে পাঠানো হবে। এছাড়া এখন থেকে কোন কোম্পানি টানা ৬ মাস তার কার্যক্রম পরিচালনা থেকে বিরত থাকলে বা উৎপাদন বন্ধ রাখলে সেটিকেও জেড ক্যাটাগরিতে স্থানান্তর করা হবে। পাশাপাশি কোন কোম্পানির টানা দুই বছর ক্যাশ ফ্লো নেতিবাচক আসলে এবং পরিশোধিত মূলধনের থেকে ঋণ বেশি হলে তাকেও স্থান দেওয়া হবে জেড ক্যাটাগরিতে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, কোন কোম্পানি সিকিউরিটিজ আইন, বিধি-বিধান, বিজ্ঞপ্তি, আদেশ কিংবা নির্দেশাবলী পালনে ব্যর্থ হলে বা অসম্মতি জানালে সেটিকেও কমিশনের পূর্বানুমোদন সাপেক্ষে জেড ক্যাটাগরিতে সমন্বয় করা হবে।

এওয়াইএইচ