এখন মাঠে

এমিলিয়ানো মার্টিনেজ বীরত্বে সেমিফাইনালে আর্জেন্টিনা

আবারও এমিলিয়ানো মার্টিনেজের বীরত্বে আর্জেন্টিনার জয়। কোপা আমেরিকায় ইকুয়েডরের বিপক্ষে পেনাল্টি শ্যুট আউটে ৪-২ ব্যবধানে জিতেছে লিওনেল স্কালোনির দল। এই জয়ে ৪ মিলিয়ন ডলার নিশ্চিত করেছে আলবিসেলেস্তারা। শেষ আটে গোলবিহীন ছিলেন দলের অন্যতম ভরসা লিওনেল মেসি।

প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে ইকুয়েডরের বিপক্ষে প্রথম পেনাল্টি শ্যুট আউট মিস করলেন লিওনেল মেসি। তাতেই স্তব্ধ টেক্সাসের এনআরজি স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে বসা দর্শকসহ আর্জেন্টিনার লাখ লাখ ভক্তরা।

তবে আর্জেন্টিনা দলে মেসিসহ আরও অনেক যোদ্ধা আছেন। এর আগেও বিশ্বকাপসহ অনেক বড় ম্যাচেও বারের নিচে দাঁড়িয়ে একাই লড়েছেন বাজপাখি খ্যাত এমিলিয়ানো। ইকুয়েডরের বিপক্ষে আবারও সেই মার্টিনেজ। তাকে ভেদ করে জালে বল পাঠানো এত সহজ নয়। হলোও তাই। পরপর দুই শ্যুট ঠেকিয়ে দেন তিনি। আর তাতেই পিছিয়ে পড়ে ইকুয়েডর।

জুলিয়ান আলভারজে, অ্যালিস্টার, গনজালো মন্টিল আর নিকোলাস ওটামেন্দির পায়ের জাদুতে সেমিতে পৌঁছানোর আনন্দে মাতে আলবিসেলেস্তারা।

স্বাভাবিকভাবে ফেবারিটের তকমা গায়ে নিয়ে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলতে মাঠে নামে আকাশি নীল জার্সিধারীরা। চোটের শঙ্কাকে হার মানিয়ে আর্জেন্টিনার একাদশে ফেরেন দলের অন্যতম ভরসা লিওনেল মেসি। জায়গা হারান আরেক তারকা ফুটবলার ডি মারিয়া।

তবে জয়ের ক্ষুধায় আর্জেন্টিনার ফুটবলারদের তাড়িয়ে বেড়াচ্ছিলো প্রতিপক্ষ ইকুয়েডর। ফিনিশারের অভাবে গোল করতে ব্যর্থ হওয়া দলটা পিছিয়ে পরে ৩৫ মিনিটে। দলের হয়ে প্রতিপক্ষের জাল কাঁপান আর্জেন্টিনার ডিফেন্ডার লিসান্দ্রো মার্টিনেজ।

প্রথমার্ধের বাকি সময় আর বিরতির পর ম্যাচের ফলাফল অনেকে ধরে নিয়েছেন ১-০। তবে ম্যাচের শেষ মুহূর্তে আর্জেন্টিনার সমর্থকদের হৃদস্পন্দন বাড়িয়ে জয়ের আশা জাগিয়ে তোলে ইকুয়েডর। এক গোলে ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে।

ফিফা বিশ্বকাপ ও আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে আর্জেন্টিনার মুখোমুখিতে পাঁচবার জয় আছে ইকুয়েডরের। তবে কোপা আমেরিকা? লাতিন আমেরিকার শ্রেষ্ঠত্বের আসরে সেলেসাওদের বিপক্ষে ইকুয়েডরের নেই কোনো জয়োচ্ছ্বাসের ছবি। দলটা-যে আর্জেন্টিনা!

এভিএস

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর