দেশে এখন

'আদালতের আদেশে আন্দোলনে প্রভাব পড়বে না, আন্দোলন চলবে'

আদালতের আদেশে আন্দোলনে কোনো প্রভাব পড়বে না বলে জানিয়েছেন বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সমন্বয়ক নাহিদ ইসলাম। তিনি জানান, আন্দোলন আপাতত চলবে। কমিশন গঠন করে কোটা সংস্কার না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

আজ (বুধবার, ১০ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টায় কোটা পুনর্বহাল করে হাইকোর্টের দেয়া রায়ে আপিল বিভাগের স্থিতাবস্থার আদেশ দেয়ার পর তিনি এ কথা বলেন।

আজ দুপুর ১২টায় সরকারি চাকরির প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে কোটা পুনর্বহাল করে হাইকোর্টের দেয়া রায়ের ওপর আগামী এক মাসের জন্য স্থিতাবস্থা দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

এ আদেশের ফলে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিল করে ২০১৮ সালে সরকারের জারি করা পরিপত্র বহাল থাকছে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। তবে এ রায়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে কোনো প্রভাব পড়বে না বলে জানিয়েছেন আন্দোলনকারী নেতারা।

তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সমন্বয়ক নাহিদ ইসলাম বলেন, ‘আদালতের আদেশে আন্দোলনে কোনো প্রভাব পড়বে না। আন্দোলন আপাতত চলবে। পরে আদালতের আদেশের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানানো হবে।’

সংগঠনটির আরেক সমন্বয়ক হাসনাত আবদুল্লাহ্ বলেন, ‘আদালতের আদেশে আমরা আশাহত হয়েছি, তবে দমে যাইনি। আমরা স্পষ্ট করে বলতে চাই, যতক্ষণ পর্যন্ত কমিশন গঠন না করে কোটা সংস্কার না করা হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। হামলা, মামলায় কোনো লাভ নেই।’

এর আগে আজ সারাদেশে এক দফা দাবিতে সকাল-সন্ধ্যা ব্লকেড কর্মসূচি পালন করছেন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা। সকাল ১০টা থেকে শুরু হয় এই কর্মসূচি।

রাজধানীর মহাখালীর আমতলীতে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে কোটা বৈষম্য বিরোধী ছাত্র আন্দোলনের সমর্থকরা। এছাড়া শাহবাগ, নীলক্ষেত, সায়েন্সল্যাব, চানখারপুল, মৎস্যভবন, পল্টন এলাকায় অবরোধ করে কর্মসূচি পালন করছেন আন্দোলনকারীরা। কারওয়ান বাজার, ফার্মগেট, রামপুরা ব্রিজ, মিরপুর এলাকাতেও একই দাবিতে আন্দোলন করছেন শিক্ষার্থীরা।

এমএসআরএস

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর