শিকড়
সংস্কৃতি ও বিনোদন
হারিয়ে যাচ্ছে বগুড়ার আঞ্চলিক শব্দ আর ভাষাগুলো
হামি, তুমি, মুই হামরা। গান, গল্প, কবিতা আর উপন্যাসেও তেমন ঠাঁই নেই এই ভাষার। শুদ্ধ ভাষার চর্চা করতে গিয়ে দিনকে দিন প্রমিত ভাষা কেড়ে নিচ্ছে মায়ের মুখ থেকে শেখা এমন শব্দ আর আঞ্চলিক ভাষাগুলো। আঞ্চলিক স্বাতন্ত্র রক্ষায় এই ভাষাগুলো বাঁচাতে দরকার পৃষ্ঠপোষকতা।

সেই ভাষা আন্দোলন থাক্যা অ্যাকাত্তুরের মুক্তিযুদ্দ। কোনটি থাক্যাও পিছ্যা আসে নাই বোগড়্যার মানুষ। বাংলা আর বাঙালীর অধিকার আদায়ের সোগ আন্দোলনে বুক পাত্যা খাড়া হোচলো এটকার মানুষ।

সেই লড়াই সংগ্রামের ফসল আজক্যার গাও-গেরাম, হাট-বাজার আর ভাষা। গানের কথা আর বাস্তবতা মিল্যাইতো হাজার বচর আগেকার পুরানা সভ্যতা, বেহুলা লখিন্দর আর অলি আউলিয়ার ইতিহাস লিয়ে জাগ্যা আচে আজক্যার বোগড়্যা।

আর দশটা এলাকার মানস্যের মুকের ভাষার লাকান মাধূয্যে পরিপূর্ণ এটকার ভাষা। দুক্কো-কষ্ট আনন্দ-বেদনার মিশ্যালে যে ভাষাত ল্যাকা আছে ইঙ্কা ম্যালা গান আর সুর।

সুফী সাধক শাহ ফতেহ আলী, শাহ সুলতান বলখীর এই মাটিত অ্যকন বাংলা-ইংরেজির মিশ্যালে ল্যাকা সাইনবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুনের কুটিও উটক্যা পাওয়া যায়না আঞ্চলিক এই ভাষা। তাইতো দিনে দিনে এটকার মানসের মুক থাকি হারে যাচ্চে মায়ের মুকের প্রাণের এই ভাষা।

স্থানীয় একজন কলেন, 'ওই শুল্টির মদ্দে দেকলাম আজ কোমা চুরি ডাকাতি হলো বারে, ক্যাঙ্কা করে কুটি যাচ্চেন। এই কতাগুলো হামি কবার গেলে হামি যে লেকাপড়া করে আচ্চি এডা আর কেউ বিশ্বেসই করবিললয়। বোগড়্যার মানুষ হামি বোগড়োতই জন্ম হামার, তাও এ ভাষাত কতা কওয়া হামার জন্য কষ্টকর।'

তবে বোগড়্যার ভাষা বাচ্যা রাখতে ৪৮ বছর ধর‌্যা কাজ কর‌্যা যাচ্চেন সাংস্কৃতিককর্মী তৌফিকুল আলম টিপু। আঞ্চলিক ভাষায় ল্যাকা আছে তার হাজার খানেক গান। আছে গপ্পো, কবিত্যা, লকশা। এ্যাকনো নিজেই তার গড়া ইয়্যুথ কয়ারোত হাতে কলমে গান দিয়া আঞ্চলিক ভাষার বিস্তারে কাম কর‌্যা যাচ্চেন।

স্থানীয় ও জাতীয় সমস্যা-সম্ভাবনার পাশাপাশি যার গানোত ফুট্যা ওটে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন বিষয়। সেই সত্তরের দশকে দইয়ের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে 'গোবরা খ্যায়া যা শেরপুরের দই, পাঁচ শিকা আঁচল অ্যাকন পাঁচটেকায় লই।' লেখা এ গান দিয়েই শুরু আঞ্চলিক গানের প্রতিষ্ঠান ইয়্যুথ কয়্যারের যাত্রা। এরপর অর্থাভাবে আটক্যা আচে তার ল্যাকা হাজার খানেক গানের পান্ডুলিপি আর অডিও রেকর্ডিংয়ের কাম।

বগুড়া ইয়্যূথ কয়্যারের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক তৌফিকুল আলম টিপু বলেন, 'হামরা শক্তিশালী হলে পৃষ্ঠপোষকতা পালে একদল গায়ক গায়িকাকে তৈরি করে তুললামনি।'

সগলির প্রত্যাশাটা ইঙ্ক্যা রফিক-শফিক-জোব্বারের অক্তে কেনা বাংলায় টিক্যা থাক বোগড়্যার লাকান বাহের দ্যাশ অমপুরসহ সোগ অঞ্চলের আঞ্চলিক ভাষা।

এমএসআরএস