সংস্কৃতি ও বিনোদন
সালমান খানের বাড়ির সামনে দুর্বৃত্তের হামলা
মুম্বাইয়ে বলিউড তারকা সালমান খানের বাড়ির সামনে আবারও দুর্বৃত্তরা হামলা করেছে। রোববার (১৪ এপ্রিল) ভোর পাঁচটার দিকে মুম্বাই বান্দ্রা এলাকায় অভিনেতার গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টের সামনে চার রাউন্ড গুলি ছুড়ে দুর্বৃত্তরা। ছোড়া গুলির মধ্যে একটি এসে লাগে অভিনেতার জানলার পাশের দেওয়ালে। তারপর থেকেই নড়েচড়ে বসে মুম্বাই পুলিশ।

এ ঘটনার দায় স্বীকার করেছে বিষ্ণোই গ্যাং। তারা শুধু ঘটনার দায় স্বীকারই করেনি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দিয়ে রীতিমতো হুমকি দিয়েছে অভিনেতাকে। 

হামলার সময়কার সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, হামলাকারী দুই ব্যক্তির মধ্যে একজন কালো জ্যাকেট পরিহিত। পরে ওই ব্যক্তির পরিচয় পাওয়া গেছে। বিশাল ওরফে কালু নামে ওই ব্যক্তি অভিনেতার বাড়িতে বাইকে এসে গুলি ছুড়ে যায়।


সালমানের বাড়ির বাইরে গুলি চালানোর ঘটনায় অভিযুক্ত বিশাল ওরফে কালু। ছবি: সংগৃহীত।

জানা যায়, বিশাল গুরুগ্রামের বাসিন্দা। তিনি বিষ্ণোই গ্যাংয়ের সদস্য। ২০২০ সালে প্রথমবার গ্রেপ্তার হন। মোটরসাইকেল চুরির অভিযোগে তিহাড়ে বন্দি ছিলেন তিনি। পাশপাশি রোহিত গোধরা গ্যাংয়ের সঙ্গেও কাজ করেছেন। গত বছর গুরুগ্রামে খুনের অভিযোগে নাম জড়ায় তার। আর এবার সালমান খানের বাড়িতে গুলি চালিয়ে রাতারাতি সোস্যাল মিডিয়ায় আলোচনায় চলে এলো।

এই মুহূর্তে জেলে বন্দি আছে গ্যাং প্রধান লরেন্স বিষ্ণোই। এই ঘটনার ১২ ঘণ্টা কাটার আগেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হুমকির পোস্ট দেন লরেন্সের ভাই আনমোল বিষ্ণোই।

তিনি লিখেছেন, 'আমাদের ওপর হওয়া অত্যাচারের নিষ্পত্তি চাই। আজ যা হয়েছে, তা শুধুই একটা ঝলক ছিল সালমান খান। যাতে তুমি বুঝতে পারো আমরা কত দূর যেতে পারি। এটাই ছিল তোমাকে দেওয়া শেষ সুযোগ। এর পর গুলিটা তোমার বাড়ির বাইরে চলবে না। দাউদ ও ছোটা শাকিল নামের যে দু’জনকে তুমি ভগবান মানো, সেই নামের দু’টি কুকুর পুষেছি বাড়িতে। বেশি কথা বলার লোক আমি নই। জয় শ্রীরাম।'

তবে গোটা ঘটনায় মোটেই বিচলিত হননি সালমান খান কিংবা তার বাবা সেলিম খান। ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছেন, খান পরিবার যে এই ঘটনায় ভয় পেয়েছে তেমন নয়। বরং সব কিছু স্বাভাবিকই রয়েছে তাদের বাড়িতে।

ইএ