যুদ্ধ , মধ্যপ্রাচ্য
বিদেশে এখন
রমজানের প্রথম ১০ দিনে গাজায় নিহত ৯০০
রমজানের ১০ দিনে গাজা উপত্যকাটিতে নিহত হয়েছেন প্রায় ৯০০ জন। পঞ্চম দিনের মতো আল-শিফা হাসপাতালে অভিযান চালাচ্ছে ইসরাইলের সেনাবাহিনী। হাসপাতালটিতে আশ্রয় নেয়া হাজারের বেশি নিরীহ মানুষের ওপর নির্বিচারে চালানো হচ্ছে হামলা। আইডিএফের দাবি, ১৪০ হামাস যোদ্ধাকে হত্যা করা হয়েছে। প্রাণ বাঁচাতে অনেকেই ছাড়ছেন শহর।

এমন দুর্বিষহ অবস্থায় আশার প্রদীপ হিসেবে সামনে এসেছে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব। বৃহস্পতিবার (২১ মার্চ) জমা দেয়া এ প্রস্তাবে জিম্মিদের মুক্তির জন্য তাৎক্ষণিক যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব দিয়েছে মার্কিন প্রশাসন।

এ নিয়ে ভোটাভুটি হবে আজ শুক্রবার। মধ্যপ্রাচ্য সফরে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যুদ্ধবিরতির জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে রাফায় স্থল অভিযান চালানো হলে বাইডেন সরকার সমর্থন দিবে না।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেন, 'রাফাহর বিষয়ে আমি আবারও পরিষ্কার করছি, স্থল অভিযান চালানো ভুল হবে। আমরা এ বিষয়ে সমর্থন দিব না। অভিযান শুরু হলে বিপুল সংখ্যক মানুষ এখানে আটকে পড়বে।'

দিন দিন গাজায় তীব্র হয়েছে খাদ্য সংকট। বিমান থেকে প্যারাসুটের মাধ্যমে ত্রাণ ফেলা হলেও প্রয়োজনের তুলনায় একেবারে নগণ্য। অপুষ্টিতে আক্রান্ত শিশু দিয়ে ভর্তি হয়ে গেছে হাসপাতাল। এমন পরিস্থিতিতে দুর্ভিক্ষ এড়াতে যুদ্ধবিরতির পাশাপাশি স্থলপথে ত্রাণ সরবরাহের আহ্বান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধানের।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক তেদ্রোস আধানম ঘ্রেব্রিয়াসুস বলেন, 'সাম্প্রতিক সময়ে আকাশ ও সমুদ্রপথে ত্রাণ সরবরাহকে আমরা স্বাগত জানাচ্ছি। তবে সড়কপথের মাধ্যমে বড় ত্রাণবহরই একমাত্র গাজায় দুর্ভিক্ষ এড়াতে পারে।'

ইসরাইলের সমালোচনার পরে আবারও নেতানিয়াহু সরকারকে অস্ত্র দিতে যাচ্ছে বাইডেন প্রশাসন। মার্কিন সংবাদমাধ্যম অ্যাক্সিয়সের তথ্যমতে, চলতি সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্র যাচ্ছেন তেল আবিবের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়োভ গ্যালন্ট। অস্ত্রের পাশাপাশি আলোচনা হবে এফ-৩৫ ও এফ-১৫ যুদ্ধবিমান কেনার বিষয়ে।

এভিএস