ফুটবল
এখন মাঠে
এমবাপ্পে-কেইনরা সর্বোচ্চ বেতনভোগী ফুটবলার!
চলতি মৌসুমে ইউরোপিয়ান লিগ, সৌদি প্রো লিগ ও এমএলএসে খেলা ফুটবলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ বেতনভোগী কারা? ক্রীড়াভিত্তিক সংবাদমাধ্যম গিভ মি স্পোর্ট প্রকাশ করেছে, প্রতি সপ্তাহে সর্বোচ্চ আয় করা তারকাদের নাম।

এই মূহুর্তে সৌদি প্রো লিগের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন হলো ক্রিষ্টিয়ানো রোনালদো। গেল বছরে ম্যানইউ ছেড়ে এই পর্তুগিজ তারকা মধ্যপ্রাচ্যের ক্লাব আল নাসরে যোগ দেন। তারপর থেকেই যেন সেখানকার ফুটবলের হালচাল বদলে গেছে।

অভিজ্ঞ এ ফুটবলার মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে ইংলিশ ক্লাব ছেড়েছেন। প্রতি সপ্তাহে সৌদির ক্লাবটি তাকে প্রায় ৩৩ লাখ পাউন্ড বেতন দেয়। যা ইউরোপিয়ান শীর্ষ পাঁচটি লিগে খেলা সর্বোচ্চ বেতন পাওয়া খেলোয়াড়দের সম্মিলিত বেতনের চেয়েও বেশি।

আর্জেন্টাইন মহাতারকা লিওনেল মেসি যদি সৌদি লিগে যোগ দিতেন তাহলে তিনি রোনালদোর চেয়েও বেশি বেতনভোগী হতেন। কারণ আল হিলালও তাকে লোভনীয় প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্ত সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে এলএম টেন যোগ দেন এমএলএসের ক্লাব ইন্টার মায়ামিতে।

ক্লাবটিতে তার সাপ্তাহিক বেতন ১ লাখ ৮২ হাজার ৬৩০ পাউন্ড। যা মেজর সকার লিগে সর্বোচ্চ বেতন। তবে বেতন ছাড়াও তিনি অন্যান্য খাত থেকে অর্থ উপার্জন করেন। এর মধ্যে স্পন্সরশিপ চুক্তি অন্যতম উপার্জনের মাধ্যম।

ইউরোপিয়ান লিগে খেলা ফুটবলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ আয় করেন কিলিয়ান এমবাপ্পে। ফ্রান্সের বিশ্বকাপজয়ী ফুটবলার পিএসজি থেকে প্রতি সপ্তাহে প্রায় ১২ লাখ পাউন্ড নেন। গুঞ্জন রয়েছে স্প্যানিশ ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে গেলে তার বেতনের অঙ্ক কমতে পারে।

বেতনের দিক দিয়ে এমবাপ্পের পরের অবস্থানে আছেন ডি ইয়ং। বার্সেলোনা থেকে তিনি প্রতি সপ্তাহে প্রায় ৬ লাখ ১৬ হাজার পাউন্ড পান। অনেক টাকা বেতন নিয়ে আস্থার প্রতিদানও দিয়ে যাচ্ছেন এই ডাচ ফুটবলার।

ইংলিশ তারকা হ্যারি কেইনকে লেভানডভস্কির বিকল্প হিসেবে টটেনহ্যাম থেকে দলে ভিড়িয়েছিল বায়ার্ন মিউনিখ। বিনিময়ে প্রতি সপ্তাহে তাকে দেয়া হয় ৪ লাখ ১০ হাজার পাউন্ড। যা বুন্দেসলিগায় সর্বোচ্চ বেতনের সংখ্যা। রেকর্ড সংখ্যক বেতন নিয়ে নামের প্রতি সুবিচার করে যাচ্ছেন এই ফুটবলারও।

তাদের ছাড়াও শীর্ষ লিগে খেলা সর্বোচ্চ বেতনভোগী ফুটবলারদের তালিকায় নাম আছে ডি ভ্রুইনা ও ভ্লাহোভিচের মতো তারকাদের।

এমএসআরএস