দেশে এখন

‘আওয়ামী লীগ মাথা নত করে না, ফিনিক্স পাখির মতো বার বার জেগে উঠেছে’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, প্রতিষ্ঠার পর থেকে আওয়ামী লীগকে বার বার নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্র হয়েছে কিন্তু জনগণ আর তৃণমূল কর্মীদের শক্তি নিয়ে ফিনিক্স পাখির মতো বার বার জেগে উঠেছে। আওয়ামী লীগ কারো কাছে মাথা নত করে না। আজ (রোববার, ২৩ জুন) বিকেল সাড়ে ৩টায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন আওয়ামী লীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী উদ্‌যাপন অনুষ্ঠান শুরু হয় বিকেল সাড়ে ৩টায়। ততক্ষণে অনুষ্ঠানস্থলে হাজির দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী, বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতা, বাংলাদেশে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনৈতিক, শিক্ষক, সাহিত্যিকসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ।

৪৩ বছর ধরে দলকে নেতৃত্ব দেয়া বঙ্গবন্ধু কন্যা সভাস্থলে এসেই জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করেন। বেলুন ও পায়রা উঠিয়ে ছড়িয়ে দেন শান্তির বার্তা। পাশে তৃতীয়বারের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় তুলে ধরা হয় ৭৫ বছরের ইতিহাস, অর্জন ও আগামীর বার্তা। বক্তব্যে ত্যাগের ইতিহাস তুলে ধরেন দলের শীর্ষ নেতারা। দলীয় সভাপতির বক্তব্যে উঠে আসে প্রতিষ্ঠাকাল থেকে শুরু করে দেশের স্বাধীনতা পরবর্তী সংগ্রামের কথা।

সরকারপ্রধান বলেন, 'আওয়ামী লীগ মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে অবশ্যই কাজ করবে। ২০২৬ সালে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হবার সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ’৪১ সালকে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলা হবে।'

গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকায় বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে, এ ধারা অব্যাহত রাখতে হবে বলেও এ সময় তিনি দলীয় কর্মীদের নির্দেশ দেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘'৭৫ পরবর্তী সময়ে যারা ক্ষমতায় এসেছে, তারা অস্ত্র অথবা ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ক্ষমতা দখল করেছে। আওয়ামী লীগ ছাড়া কেউ জনগণের ম্যান্ডেট নিয়ে ক্ষমতায় আসতে পারেনি। ৭৫ বছর আগে এমনই এক শ্রোতে শামিল হয়েছিলেন যারা তারা হয়তো বেঁচে নেই, কিন্তু তাদের রেখে যাওয়া নাম এখনো শ্লোগান হয়ে উচ্চারিত হয়।'

৭৫ বছরের দীর্ঘ এ পথচলায় ভাষা আন্দোলন, মহান মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে সব আন্দোলন-সংগ্রামে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছে দলটি। এই সময়ে এসেছে নানা বাধা-বিপত্তি-দুর্যোগও। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা, দলে ভাঙন, নেতাদের দলত্যাগ, সামরিক জান্তাদের রোষানল, নিষেধাজ্ঞা, হামলা-মামলাসহ কণ্টকাকীর্ণ পথ পাড়ি দিতে হয়েছে আওয়ামী লীগকে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, '২০০৭ সালেও আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করার চেষ্টা হয়েছে। যারা দলের চেয়ে নিজেকে বড় মনে করেছেন ও দল ছেড়ে গেছেন তারা ভুল করেছেন।'

জনগণের আস্থা বিশ্বাস অর্জন করতে আগামীতে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলবে আওয়ামী লীগ। এটিই প্লাটিনাম জুবলিতে দলটির অঙ্গীকার বলেও জানান সরকারপ্রধান।


ইএ

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর