দেশে এখন

চরম খাদ্য সংকটে সেন্টমার্টিন দ্বীপবাসী

মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ সংঘর্ষের কারণে গত ৯ দিন ধরে কক্সবাজারের টেকনাফে নাফ নদীতে ট্রলার চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে টেকনাফ থেকে খাদ্য সরবরাহ বন্ধ হওয়ায় সেন্টমার্টিন দ্বীপের বাসিন্দারা পড়েছেন চরম খাদ্য সংকটে। তাদের জন্য বিকল্প পথে খাবার পাঠানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে কক্সবাজার জেলার ম্যাজিস্ট্রেট।

আজ (শুক্রবার, ১৪ জুন) বিকল্প পথ হিসেবে দ্বীপের বাসিন্দাদের জন্য কক্সবাজার শহর থেকে খাদ্যপণ্য ও যাত্রী নিয়ে সেন্টমার্টিন যাচ্ছে একটি এমভি বারো আউলিয়া নামে একটি জাহাজ। এসব পণ্য গেলে একমাস খাদ্যের সংকট নিয়ে হবে না বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইয়ামিন হোসেন জানিয়েছেন, জাহাজটিতে দ্বীপবাসীর জন্য ১৫০ টনের বেশি খাদ্যপণ্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এর মধ্যে সরকারি ভিজিএফের চাল আছে ৭৫ টন। এছাড়া ৩০০ প্যাকেট শুকনো খাবার এবং ৫টি গরু পাঠানো হচ্ছে জেলা প্রশাসন থেকে। এসব ছাড়াও দ্বীপের ব্যবসায়ীরা ৭৫ টনের বেশি পণ্য নিয়ে যাচ্ছেন। যেখানে চাল, ডাল, আলু, পেয়াঁজ, গ্যাসসহ নানা ধরনের পণ্য রয়েছে।

কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্সের মালিকানাধীন এমভি বারো আউলিয়ার পরিচালক হোসাইনুল ইসলাম বাহাদুর জানান, বিনা ভাড়ায় এই জাহাজে করে দ্বীপটিতে খাদ্যপণ্য নিতে পারছেন ব্যবসায়ীরা। দ্বীপের বাসিন্দারাও একই জাহাজে দ্বীপটিতে বিনা ভাড়ায় যেতে পারছেন।

এছাড়াও অসুস্থ যারা তারা আগামীকাল (শনিবার, ১৫ জুন) এ জাহাজে করে ফিরতে পারবেন বলেও জানান তিনি।

এমএসআরএস

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর