বাজার
ঈদে শিশুদের পোশাকের বিক্রি বেশি
ঈদ উৎসবে শিশুদের আনন্দটাই থাকে সবচেয়ে বেশি। আর তাই তো যেকোন উৎসবে সবার আগে প্রাধান্য দেওয়া হয় শিশুদের। শিশুদের জামাটা তাই সবার আগে কিনতে হয়।

ঈদবাজারে শিশুদের কথা মাথায় রেখে আয়োজনের কমতি নেই। বিবেচনায় থাকছে চলতি ট্রেন্ডও। তবে যে পুতুল নিয়ে রোজ খেলা, সেই 'বার্বি ডলে'র গোলাপি ঝালরের পোশাকের বায়না অনেক শিশুর।

এবার রজমানজুড়ে এই গরম, এই বৃষ্টি- যা মাথায় রেখে অনেকটাই আবহাওয়া উপযোগী রকমারি ডিজাইন নিয়ে হাজির স্বনামধন্য ফ্যাশন হাউজ কান্ট্রি বয়। দেশি পোশাকের সঙ্গে শিশুদের জন্য ওয়েস্টার্ন ডিজাইনও রয়েছে। এছাড়া রঙের বৈচিত্র্যময় ব্যবহারও রয়েছে।

এক শিশু বলে, ঈদের জন্য আমি লাল টুকটুকে একটা জামা কিনবো। আমার বার্বি ডলের জামা খুব পছন্দ।

সুতি, লিনেনের মতো আরামদায়ক পোশাক এবার সবখানেই প্রাধান্য পাচ্ছে। মেয়েদের জন্য সুতির টুপিস, থ্রিপিস, স্কার্ট-টপ এবং এক ছাঁটের ফ্রকের বড় সংগ্রহ এনেছে বিভিন্ন ফ্যাশন হাউস। তবে এবারের ঈদে মেয়েদের পোশাকের মধ্যে আফগানি, নায়রা কাট আর সারারা চলছে বেশি।

বিক্রেতারা বলেন, বড়দের ফোর পিস, সাদা বাহার চলছে। বাচ্চাদের টুপিস, আলিয়া কাটও বেশ বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া সুতিসহ সব ধরনের পোশাকের চাহিদা আছে।

ছেলেদের জন্য রয়েছে চেক আর ডোরাকাটা হাফ হাতা শার্ট, পাঞ্জাবি ও ফতুয়া। এক্ষেত্রে প্রাধান্য পাচ্ছে এবার সুতি কাপড়। গ্রামীণ চেকের হাফ হাতা শার্টের ওপর বিভিন্ন প্রিন্ট, লেখা, কার্টুন আর ছবির ডিজাইন। সঙ্গে রয়েছে হাফ, ফুল ও থ্রি কোয়ার্টার প্যান্ট। জিন্স ও গ্যাবাডিনের কাপড়ের প্যান্টই বেশি পছন্দ শিশুদের।

এক অভিভাবক বলেন, ‘ঈদ উপলক্ষে বাচ্চাদের জন্যই আগেভাগে কেনাকাটা করছি। তারা যেটা পছন্দ করে সেটাই কেনার চেষ্টা করা হয়।’

শিশুদের জন্য টি-শার্টই বেশি আরামদায়ক। প্রচলিত চেক ডিজাইনের টি-শার্টের পাশাপাশি বিভিন্ন রং, নকশা, ছবি, দৃশ্য আর ক্ষুদে বার্তা লেখা নানা ডিজাইনের টি-শার্টও বাজারে রয়েছে।

এওয়াইএইচ