ভ্রমণ

'ফ্লাওয়ার লেক'র সৌন্দর্য টানছে দর্শনার্থীদের

সুনামগঞ্জে দর্শনার্থীদের সময় কাটানোর অন্যতম স্থান হয়ে উঠেছে 'ফ্লাওয়ার লেক' নামের এক ফুলের বাগান। শহরের যান্ত্রিকতাকে পেছনে ফেলে নির্মল আনন্দের উৎস হয়ে উঠেছে এই বাগান।

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় সাত উদ্যোক্তা ৩ একর পরিত্যক্ত জায়গা ভাড়া নিয়ে 'ফ্লাওয়ার লেক' নামে ফুলের বাগান তৈরি করেন। পড়ালেখার পাশাপাশি সঞ্চয়ের টাকা দিয়ে এই বাগান তৈরি করেন। যে বাগানটিতে পিটুনিয়া, সেলভিয়া, সেলুসিয়া, ডালিয়া, গেজিনিয়া, গাদা, কসমস, চন্দ্রমলিকাসহ মোট ২৫ ধরনের ফুল রয়েছে।

এই উদ্যোক্তারা বলেন, 'আমরা অন্যান্য পেশার পাশাপাশি এখানে শ্রম দেই। কেউ পড়াশোনা করে আবার কেউ কৃষি কাজ করে। দূর-দূরান্ত থেকে অনেক মানুষ আসে এখানে। বিশেষ করে যারা ভ্রমণ পিপাসু।'

এই বাগান তৈরি ও পরিচর্যা করতে সাড়ে তিন লাখ টাকা উদ্যোক্তাদের খরচ হয়েছে। সেই সাথে দর্শনার্থীদের সুবিধার কথা ভেবে নির্মাণ করা হয়েছে ওয়াশরুম, ক্যান্টিন, লেকের ওপর বাঁশের সেতু। এখানে ছবি তোলার জন্যও নানা আয়োজনের ব্যবস্থা রয়েছে।

২০ টাকায় টিকেটের বিনিময়ে প্রতিদিন বাগানে ঘুরতে আসেন ২০০ থেকে ৩০০ দর্শনার্থী। দর্শনার্থীরা জানান শহুরে জীবনের একঘেয়েমি আর ক্লান্তি ভুলে স্বস্তির নিঃশ্বাস নিতে ফ্লাওয়ার লেকের সৌন্দর্য উপভোগ করতে আসেন।

তারা বলেন, 'ফেসবুকে ছবি দেখে প্রচন্ড ঠান্ডার মধ্যেও আমরা এখানে এসেছি। জায়গাটা অনেক সুন্দর, এসে খুব ভালো লাগছে। মনকে শান্ত করার জন্য এখানে এসেছি।'

বাগানে এসে দর্শনার্থীদের অন্যতম আগ্রহের বিষয় হলো ছবি তোলা। আর এই ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে ফটোগ্রাফারদের বিকল্প আয়ের পথ তৈরি হয়েছে।

এক ফটোগ্রাফার বলেন, 'এখানে ছবি তোলে মোটামুটি ভালোই পারিশ্রমিক পাওয়া যায়।'

দর্শনার্থীরা বলছেন শিশুদের বিনোদন কেন্দ্র কিংবা মনোরম পরিবেশে সময় কাটানোর স্থান না থাকায় এই বাগানে আসেন তারা। বাগানটিকে কেন্দ্র করে মৌসুমে ৮ থেকে ১০ লাখ টাকা আয় করা সম্ভব হবে বলে মনে করেন উদ্যোক্তারা।

এভিএস

এই সম্পর্কিত অন্যান্য খবর