বিশ্ব অর্থনীতি
অর্থনীতি
কৃষি ও খাদ্যে প্রশংসনীয় অবস্থানে বাংলাদেশ
রোমে শুরু হয়েছে কৃষি উন্নয়নের জন্য আন্তর্জাতিক তহবিল ইন্টারন্যাশনাল ফান্ড ফর এগরিকালচারাল ডেভেলপমেন্ট, ইফাদ (IFAD)-এর ৪৭তম গভর্নিং কাউন্সিল। 'ভবিষ্যৎ খাদ্য নিরাপত্তায় উদ্ভাবন' শীর্ষক আলোচনায় অংশ নেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধান, মন্ত্রী, উন্নয়ন ও উদ্ভাবন বিশেষজ্ঞসহ বিশ্বের ক্ষুদ্র কৃষকদের প্রতিনিধিরা।

এবারের আসরে ভবিষ্যৎ গড়ে তোলার জন্য উদ্ভাবনী শক্তিকে কাজে লাগানোর উপর জোড় দেয়া হয়েছে। যেখানে খাদ্য নিরাপত্তা এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোতে ক্ষুদ্র আকারের কৃষক ও গ্রামীণ উৎপাদকদের কাছে গ্রহণযোগ্যতা পায়।

জলবায়ু পরিবর্তন, রাজনৈতিক বিভাজন, সংঘাত, অর্থনৈতিক অস্থিতিশীলতা, অসমতা এবং সীমান্ত প্রযুক্তির উত্থানসহ জটিল এবং আন্তঃসম্পর্কিত চ্যালেঞ্জগুলি মোকাবিলায় গুরুত্বারোপ করেন বিশ্বনেতারা। তারা মনে করেন, এখন নতুন পদ্ধতির প্রয়োজন, যার সুফল পাবেন সবচেয়ে দরিদ্র গ্রামীণ জনগোষ্ঠীও।

কৃষি ও খাদ্যে বাংলাদেশের অবস্থান প্রশংসনীয়, তবে নতুন উদ্ভাবনী শক্তির মাধ্যমে উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মেলানোর সমাধান খুঁজে বাংলাদেশকেও এগিয়ে যেতে হবে।

বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী বলেন, 'বাংলাদেশের কৃষকরা কীভাবে কৃষি বহুমুখীকরণ করা যায় এটা শিখেছে।'

বিশ্বের জটিল চ্যালেঞ্জগুলো শুধু প্রচলিত পদ্ধতির উপর নির্ভর না করে, দরকার নতুন চিন্তা, নতুন ধারণা, নতুন পন্থা। এমনটাই বলছেন উপস্থিত অতিথিরা।

ইএ