প্রবাস
বিদেশে এখন
মালয়েশিয়ায় হত্যার দায়ে বাংলাদেশিকে ৩৩ বছরের কারাদণ্ড
মালয়েশিয়ায় স্বদেশি নির্মাণ কর্মীকে শিরচ্ছেদ করে হত্যার দায়ে সোহেল নামের এক বাংলাদেশিকে ৩৩ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির ফেডারেল আদালত।

আজ বুধবার (১৩ ডিসেম্বর) এক রায়ে তাকে ১২টি বেতের আঘাত দেয়ারও নির্দেশ দিয়েছে আদালত। এর আগে হাইকোর্ট থেকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেয়া হলেও সোহেলকে আপিল করার অনুমতি দিয়েছিল হাইকোর্ট।

কোর্ট অফ আপিলের সভাপতি আবাং ইস্কান্দার জানান, সোহেলের আপিল আমলে নিয়ে মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে ৩৩ বছরের কারাদণ্ড এবং বেতের ১২টি আঘাত দেয়ার আদেশ দিয়েছে ফেডারেল আদালত। সোহেলকে দোষী সাব্যস্ত করে রায়ে বলা হয়, ২০১৭ সালের ১১ ফেব্রুয়ারীতে আটক হওয়ার তারিখ থেকে এই সাজা কার্যকর করা হবে।

ঘটনা বিবরণীতে জানা যায়, ২০১৭ সালের ৯ ফেব্রুয়ারী পলাস কুমার (২৯) নামের এক বাংলাদেশি নির্মাণাধীন ভবনে হত্যার শিকার হয়। ভবনের ১০ তলায় মাথাবিহীন লাশ এবং নিচ তলায় মাথা পাওয়া যায়।

গ্রেপ্তারের পর, সোহেল পুলিশকে সেখানে নিয়ে যায় যেখানে সে একটি কুড়াল এবং ঘটনার সময় যে পোশাকটি সে লুকিয়ে রেখেছিল। পরে এ মামলায় সোহেলকে (৩৮) দোষী সাব্যস্ত করে হাইকোর্ট ২০১৯ সালের ২৩ আক্টোবর।

ডেপুটি পাবলিক প্রসিকিউটরকে মাঙ্গাই আদালতকে জানান, সোহেল তার দোষী সাব্যস্ততার বিরুদ্ধে আপিল প্রত্যাহার করবে এবং প্রতিরক্ষা ও প্রসিকিউশন উভয়ই একটি বিকল্প সাজা জমা দেবে।

সোহেলের কৌঁসুলি আমিরুল জামালুদ্দিন আদালতকে তার মক্কেলের মৃত্যুদণ্ডকে জেলের মেয়াদে পরিবর্তন করতে বলেন, যা দণ্ডবিধির ৩০২ ধারায় একটি সংশোধনী যা বাধ্যতামূলক মৃত্যুদণ্ড বাতিল করেছে এবং বিচারকদের হেফাজতে সাজা দেওয়ার বিচার ক্ষমতা দিয়েছে।

তিনি বলেন, হত্যাকাণ্ডটি পূর্বপরিকল্পিত নয়, উস্কানির কারণে মুহূর্তের প্ররোচনায় ঘটেছে।

এমএসএ