বিদেশে এখন
ইতালিতে অভিবাসন প্রত্যাশীর সংখ্যা কমেছে ৫০ শতাংশ
অবৈধভাবে সাগর পথে অভিবাসন প্রত্যাশীদের ঠেকাতে ইতালি সরকারের বিভিন্ন উদ্যোগ কাজে লাগতে শুরু করেছে। গেল বছরের একই সময়ের তুলনায় অভিবাসন প্রত্যাশীর সংখ্যা কমেছে ৫০ শতাংশ। তবে এরইমধ্যে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেয়ার এই মরণপথে বাংলাদেশিসহ ১৩৯ জন অভিবাসন প্রত্যাশীকে উদ্ধার করা হয়েছে।

ইতালির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে, চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে ইতালিতে গত বছরের তুলনায় একই সময়ের অভিবাসী আগমনের হার কমেছে ৫০ শতাংশ। তবে অভিবাসী আগমনের হার কমলেও সমুদ্রে দুর্ভোগ ও প্রাণহানির শিকার হচ্ছেন বিপুল সংখ্যক অভিবাসী।

২০২৪ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২২ মার্চের মধ্যে মোট নয় হাজার ৪৭৯ জন অভিবাসী ইতালিতে এসেছেন। যা গত বছরের একই সময়ের তুলনায় ৫০ শতাংশ কম। ২০২৩ সালে সংখ্যাটি ছিল রেকর্ড ২০ হাজার ৩৬৪ জন। চলতি বছর এ পর্যন্ত ৬৮৮ জন অপ্রাপ্তবয়স্ক অভিবাসী ইতালিতে এসে পৌঁছেছেন। গত বছরের একই সময়ে সংখ্যাটি ছিল দুই হাজার।

ভূমধ্যসাগরকে অভিবাসন রুটের মধ্যে সবচেয়ে মারত্মক হিসাবে বিবেচনা করা হয় ৷ তবুও এই পথ পাড়ি দিয়ে অভিবাসন প্রত্যাশীরা ইউরোপের দক্ষিণে পৌঁছানোর চেষ্টা করেন৷ এ সপ্তাহে লিবিয়া থেকে নৌকায় করে বাংলাদেশিসহ ১৩৯ জন অভিবাসন প্রত্যাশীকে একটি তেলবাহী ট্যাংকার থেকে উদ্ধার করে।

২০২৩ সালে এই পথে অন্তত তিন হাজার ১২৯ মারা গেছেন বা নিখোঁজ হয়েছেন, যা ২০১৭ সাল থেকে সর্বোচ্চ।

ইএ